কিবরিয়া হত্যাকাণ্ডঃ হবিগঞ্জের মেয়রের জামিন নামঞ্জুর

সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত বিস্ফোরক মামলায় হবিগঞ্জ পৌরসভার সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র জি কে গউছের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছে আদালত।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় জেলা ও দায়রা জজ ও বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আতাবুল্লাহ এ আবেদন নামঞ্জুর করেন।

বিস্ফোরক মামলাটি বিচারের জন্য ২৩ সেপ্টেম্বর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের আদেশে জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে মামলাটি সিলেট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। কিন্তু পলাতক আসামিদের বিষয়ে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য মামলাটি ২৭ অক্টোবর পুনরায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ফেরত পাঠানো হয়। মঙ্গলবার এ মামলায় জি কে গউছের পক্ষে জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবী মো. আব্দুল হাই। শুনানিকালে তাকে সহযোগিতা করেন সিনিয়র আইনজীবী আব্দুল মতিন খান, সালেহ উদ্দিন আহমদ, সুফি মিয়া চৌধুরী ও মো. নূরুল ইসলাম। জামিন আবেদনের বিরোধীতা করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) সিরাজুল হক চৌধুরী। শুনানি শেষে বিচারক জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন।

এর আগে, ২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বৈদ্যের বাজারে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভা শেষে ফেরার পথে গ্রেনেড হামলায় নিহত হন সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়াসহ পাঁচজন। এ ঘটনায় হত্যা এবং বিস্ফোরক আইনে পৃথক দুইটি মামলা হয়। মামলাটি বর্তমানে সিলেট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন আছে। উভয় মামলায় মোট ৩২ জন আসামি রয়েছেন। এর মাঝে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, সিলেটের সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও হবিগঞ্জে সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র জি কে গউছসহ কারাগারে আটক আছেন ১৬ জন। এদের মধ্যে খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীসহ পলাতক আছেন আটজন এবং উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছেন জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি একেএম আব্দুল কাইয়ুমসহ আটজন। এর আগে সোমবার একই মামলায় সিলেটের সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর জামিনও নামঞ্জুর হয়।

LEAVE A REPLY