লালমনিরহাট প্রতিনিধি: জেলার বিলুপ্ত ছিটমহলসহ ৮টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের মধ্যে ৬ টিতে আওয়ামীলীগ ১ টিতে বিএনপি এবং ১ টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছে। বেসরকারি ফলাফলে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন, হাতীবান্ধার গোতামারী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতীকের আবুল কাশেম সাবু ।এদিকে লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নে বিএনপি সমর্থিত ধানের শীষ প্রতীকের ইদ্রিস আলী বিজয়ী হয়েছেন।

পাটগ্রাম উপজেলার বেসরকারি ফলাফলে বিজয়ী চেয়ারম্যানরা হলেন, জগতবেড় ইউনিয়নের নবিবর রহমান(নৌকা), কুচলিবাড়ী ইউনিয়নে হামিদুল হক( নৌকা), জোংড়া ইউনিয়নে আশরাফ আলী (নৌকা), শ্রীরামপুর ইউনিয়নে আবুল হাসেম নৌকা ও পাটগ্রাম ইউনিয়নের আব্দুল ওহাব বেলাল(নৌকা), বুড়িমারী ইউনিয়নের আওয়মী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবু সাইদ নেয়াজ নিশাতের (আনারস) বেসরকারি ফলাফলে নির্বাচিত হয়েছেন।লালমনিরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফজলুল করিম ৬টি ইউনিয়নে নৌকা ও ১টি ইউনিয়নে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ও ১ ইউনিয়নে সতন্ত্র প্রাথী বেসকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

লালমনিরহাট সদরের কুলাঘাট ইউনিয়নে বিএনপি মনোনীত বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ইদ্রিস আলী (ধানের শীষ), বুড়িমারী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবু সাইদ নেয়াজ নিশাত (আনারস), পাটগ্রামের কুচলিবাড়ি ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী হামিদুল হক (নৌকা), পাটগ্রাম সদর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল ওহাব প্রধান (নৌকা), জগতবেড় ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী নবিবর রহমান (নৌকা), জোংড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আশরাফ আলী (নৌকা), শ্রীরামপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবুল হাসেম (নৌকা), হাতীবান্ধা উপজেলার গোতামারী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ-মনোনীত প্রার্থী আবুল কাশেম সাবু (নৌকা) বিজয়ী হয়েছেন ।

LEAVE A REPLY