আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী মন্তব্য করেছেন যে, শেখ হাসিনার নেতৃত্ব বাংলাদেশকে উচ্চ আসনে নিয়ে গেছে । তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় নেতৃত্বের আইকন হিসেবে ইতিমধ্যেই বিশ্ব নেতৃবৃন্দৃ শেখ হাসিনাকে স্বীকৃতি প্রদান করেছেন। এ নেতৃত্বের কারণেই আজ বিশ্ব আসনে নতুন উচ্চতায় জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ।

আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনে তৃতীয়বারের মত সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এসব কথা বলেন। সোমবার দুপুরে জেলার বিরল উপজেলা চত্বরে মুক্তমঞ্চে স্থানীয় আওয়ামী লীগ এ গণসংবর্ধনার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা দারিদ্র্য দুরীকরণের মডেল, গণতন্ত্রের মডেল, জঙ্গি দমনের আইডল, পরিবেশ রক্ষার বজ্রকণ্ঠ। তার দুরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। শিগগিরই মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশীয় ও আর্ন্তজাতিক ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু তৈরিতে বিলম্ব হয়েছে। তারপরও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পদ্মা সেতুর ৪০ শতাংশ কাজ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। পদ্মাসেতু এখন দৃশ্যমান বাস্তবতা।

খালিদ বলেন, পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে জিয়া-এরশাদ ও খালেদা জিয়ার ষড়যন্ত্রে আওয়ামী লীগকে ধ্বংসের পায়তারা করা হয়েছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ হচ্ছে হীরার টুকরা। যত কাটবে তত আলো ছড়াবে। আওয়ামী লীগ এ ভূখণ্ডের বটবৃক্ষ। প্রগতির চিন্তাধারীরা এর ছায়াতলে।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সৈয়দপুর বিমান বন্দরে অবতরণ করার পর হাজার হাজার নেতা কর্মী নব-নির্বাচিত সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরীকে ফুল দিয়ে বরন করে নেন। এরপর গাড়িবহর নিয়ে দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দিলে শত শত নেতাকর্মী রাস্তায় দাঁড়িয়ে প্রিয় নেতাকে শুভেচ্ছে জানান। খালিদ মাহমুদ চৌধুরীও নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছার জবাব দেন। এরপর দিনাজপুর-১ ( কাহারোল -বীরগঞ্জ ) আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালের আমন্ত্রণে দশ মাইল মোড়ে পথ সভায় যোগদান করেন । পরে তার নির্বাচনী এলাকা বোচাগঞ্জে গনসধংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। এসময় বিপুল সংখ্যক স্থানীয় নেতা-কর্মী তার সঙ্গে ছিলেন।

LEAVE A REPLY