নিউজ ডেস্ক
জাতীয় সংসদের স্পিকার ও কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের-সিপিএ চেয়ারপারসন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যু সারাবিশ্বকে নাড়া দিয়েছে। সর্বত্র এখন এটা নিয়ে আলোচনা চলছে। বৈশ্বিক উষ্ণায়নের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশের জন্য এটাও একটা বড় অর্জন। জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশ সম্পর্কিত সর্বদলীয় সংসদীয় গ্রুপ (এপিপিজি)’র উদ্যোগে

 

গতকাল রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আয়োজিত ‘২২তম বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন (কপ-২২) : প্যারিস চুক্তি ২০১৫ এবং বাংলাদেশের প্রত্যাশা’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

 

স্পিকার বলেন, যে কার্বণ নির্গমনের জন্য আমরা দায়ী নই, অথচ আমাদের এর ক্ষতি বইতে হচ্ছে, এটাও মানবাধিকার লঙ্ঘন। তিনি বলেন, জলবায়ু পরির্বতনের শিকার হিসেবে আমরা স্বীকৃতি পেয়েছি, ইতোমধ্যে এটাও আমাদের একটা অর্জন। যেটি প্যারিস চুক্তিতেও স্থান পেয়েছে। আসুন এটাকে নিয়ে আমরা সামনে এগিয়ে যাই। ইস্যুটিতে ইতোমধ্যে বৈশ্বিক ঐকমত্য তৈরি হয়েছে। যার কারণে বিশ্ব নেতৃত্ব স্বউদ্যোগী ভূমিকায় কাজ করছেন।

 

শিরীন শারমিন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এর ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবিলায় আমাদের পদক্ষেপ নিতে হবে। এর জন্য ধারাবাহিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে এগোতে হবে। সেক্ষেত্রে আমরা গঠনমূলকভাবে এগিয়ে যাচ্ছি। কপ-২১ এর চুক্তি হওয়ার পর এই মাসেই কপ-২২ হতে যাচ্ছে। চুক্তি করতে পারাও কম কথা নয়। এভাবে এগিয়ে যাচ্ছি। আস্তে-আস্তে যতটুকুই অর্জন করছি সবই মাইলফলক। তিনি বলেন, এখানে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে যখন যে বিষয়টি সামনে আসবে সেটিকে যথাসময়ে উপস্থাপন করা। বিশ্বদরবারে দরকষাকষির সময় শক্তিশালী যুক্তিগুলোকে প্রাধান্য দিতে হবে আমাদের। কারণ গত্বাঁধা যুক্তি দিয়ে বেশিদূর এগোনো যায় না।ইত্তেফাক

LEAVE A REPLY