নাসিরনগরে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলা তেমন কিছু না, মিডিয়াই পরিস্থিতি অস্বাভাবিক করছে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস‌্য এবং মৎস‌্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হক।

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে প্রশাসনের গাফিলতির অভিযোগ নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মৎস‌্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর উপস্থিতিতেই সাংবাদিকদের উপর চড়াও হন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চৌধুরী মোয়াজ্জেম হোসেন।

এক হিন্দু যুবকের ফেইসবুক পাতায় ইসলাম অবমাননার অভিযোগে রবিবার নাসিরনগরে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত ও হেফাজতে ইসলামের সমাবেশের পর সাম্প্রদায়িক হামলা হয়। সমাবেশে ইউএনও এবং স্থানীয় থানার ওসি আবদুল কাদের বক্তব‌্য রাখেন। নির্যাতিতদের দাবি, তাদের বক্তব্যও উস্কানিমূলক ছিল।

নিজ এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের দেড়শতাধিক বাড়ি-ঘর ও ১৫টি মন্দিরে হামলার ৩দিন পর নাসিরনগরে যান ছায়েদুল হক।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতারা প্রশাসনের গাফিলতির অভিযোগ তুলে ইউএনও ও ওসির অপসারণের দাবি তুললে বুধবার ওসি কাদেরকে প্রত‌্যাহার করা হয়।

অপরাধীদের বিচার হবে কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বিচার হবে না কেন, দেশে কি বিচার হচ্ছে না? তবে ঘটনা তো তেমন কিছুই না। ঘুরে দেখেন সবকিছু স্বাভাবিক আছে, আপনারাই বাড়াবাড়ি করছেন।

ছায়েদুল আরও বলেন, আমার দলের যে সব নেতা টাকা পয়সা খায়। এদেরকে দূরে সরিয়ে দিয়েছি। এরা এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের সংসদ সংদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। হামলার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি বিজিবি মোতায়েন করা হলেও হিন্দুদের মধ‌্যে আতঙ্ক কাটেনি। কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, তারা রাজনৈতিক কোন্দলের বলি হয়েছেন।

LEAVE A REPLY