নেত্রকোনা সদর উপজেলায় একটি মন্দিরে আগুন দেওয়ার সময় এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী।

শনিবার ভোরে নেত্রকোনা পৌরসভার সাতপাই এলাকায় একতা সংঘ কালী মন্দিরে দুর্বৃত্তরা আগুন দেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় এলাকাবাসী মো. ইউসুফ ওরফে জাহাঙ্গীর নামে একজনকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। আটক ইউসুফের বাড়ি নরসিংদী জেলায়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে কয়েক যুবক সাতপাই এলাকায় একতা সংঘ কালী মন্দিরে ঢুকে আগুন দেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তাদের দেওয়া আগুনে মন্দিরের কাপড় ও প্রতিমার চুল পুড়ে যায়। ঘটনা টের পেয়ে স্থানীয় লোকজন দ্রুত আগুন নিভিয়ে ফেলে এবং জাহাঙ্গীরকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

কালী মন্দিরের সভাপতি অজন দাস জানান, ভোরে ৪-৫ জন মিলে মন্দিরে আগুন দেওয়ার চেষ্টা করে। এলাকাবাসী টের পেয়ে একজনকে ধরে ফেলে। অন্যরা পালিয়ে যায়। আগুনে কিছু ক্ষতি হয়েছে।

নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু তাহের দেওয়ান জানান, আগুন দেওয়ার ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে পুলিশ হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

তিনি জানান, আটক সাদেক হোসেনের বাড়ী নরসিংদি এলাকায়। তবে জিজ্ঞাসাবাদে সে অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছে।

ওসি আরও জানান, তাকে থানা হেফাজতে রেখে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এছাড়া অন্য দুর্বৃত্তদের ধরার জন্য পুলিশ অভিযানে নেমেছে।

এদিকে এ ঘটনায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে আতংক ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে ।

LEAVE A REPLY