স্পোর্টস ডেস্ক: পিএলের প্রথম ম্যাচে জয় বঞ্চিত থাকল মাশরাফির কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। মঙ্গলবার মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে টি-২০ মহাযজ্ঞে চিটাগাং ভাংইকিংসের কাছে ২৯ রানে হারে কুমিল্লা। শেষ ওভারের  কুমিল্লার জয়ের জন্য দরকার ছিল ৪৮ রান। ওই ওভার থেকে ১৮ রান নিতে পারে শান্ত ও শরাীফ।

জয়ের জন্য ১৬২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ধুঁকতে থাকে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

দলীয় ৯ রানের মাথায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের প্রথম উইকেটের পতন হয়। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলে ডোয়াইন স্মিথের বলে এনামুল হকের হাতে ধরা পড়েন কুমিল্লার ওপেনার ইমরুল কায়েস (৬)। এরপর ব্যাট হাতে কুমিল্লার হয়ে আক্রমণাত্মক হয়ে উঠতে থাকেন ওয়ানডাউনে নামা মারলন স্যামুয়েলস।

তবে বিপদ হওয়ার আগেই স্যামুয়েলসকে ফেরান আবদুর রাজ্জাক। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারের তৃতীয় বলে দলীয় ৩৬ রানের মাথায় তাসিকন আহমেদের হাতে ক্যাচ হয়ে সাজঘরে ফেরেন স্যামুয়েলস। আউট হওয়ার আগে ১৮ বলে ২৩ রান করেন তিনি। এরপর আফগান বলার মোহাম্মদ নবীর শিকার হন কুমিল্লার ওপেনার লিটন দাস। ১৮ বল মোকাবেলায় ১৩ রান করে চট্টগ্রামের উইকেট রক্ষক এনামুল হকের হাতে ধরা পড়েন তিনি।

মোহাম্মদ নবীর বোলিং পড়তেই পারেননি কুমিল্লার মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ৫৮ রানের মাথায় মোহাম্মদ নবীর দ্বিতীয় শিকার হিসেবে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন আসহার জাইদি।

ইনিংসের ১২তম ওভারে ইংলিশ পেসার সলেমন মিলসের স্লোয়ার বল বুঝতে না পেরে  সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন মাশরাফি। এরপর ১৩ তম ওভারে  পাকিস্তানী ইমাদ ওয়াসিম তাসকিনকে চার মেরে সূচনা করলেও পরের বলে কভারে নবীর কাছে তালুবন্দি হন  ইমাদ ওয়াসিম।

ইনিংসের ১৮তম ওভারে  বোলিং এসে পর পর দুই বলে আল অমিন ও সোহেল তানভীরকে প্যাভিলনের পথ দেখান।

কুমিল্লার পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৪ রানের অনবদ্য একটি ইনিংস খেলেন  নাজমুল হোসেন শান্ত। ৪৪ বলে ছয়টি চারে এ রান করেন শান্ত। তার রানের সুবাদেই পরাজয়ের ব্যবধান কমাতে পেরেছে কুমিল্লা। এছাড়া স্যামুয়েলস  করেন ২৩ রান।

চিটাগাং ভাইকিংসের বোলারদের মধ্যে চারটি উইকেট নেন মোহাম্মদ নবী। এছাড়া তাসকিন, রাজ্জাক, মিলস, স্মিথ প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে  টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে  তামিম ইকবাল ও শোয়েব মালিকের ব্যাটিং দৃঢ়তায় নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৬১ রান করে চিটাগাং।

তামিম ইকবাল এবারের বিপিএলের প্রথম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন। ৩৮ বলে ৫৪ রানের ইনিংসে ছয়টি চার ও দুটি ছ্ক্কা  হাঁকান তামিম। শেষদিকে শোয়েব মালিকের অপরাজিত ৪২ রানের সুবাদে কুমিল্লাকে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দিতে পারে চিটাগাং।

LEAVE A REPLY