রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১২৪ রান করেছে চিটাগং ভাইকিংস। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩০ রান করেন শোয়েব মালিক।

বাজে শুরু করা চিটাগংয়ের হয়ে কোনো ব্যাটসম্যানই এদিন জ্বলে উঠতে পারেননি। অপরদিকে দুর্দান্ত বোলিং করেন রংপুরের বোলাররা। রংপুরের হয়ে সর্বোচ্চ দুটি করে উইকেট পান সোহাগ গাজী ও রিচার্ড গ্লিসন।

৮২ রানে দলীয় পঞ্চম উইকেট হারায় চিটাগং ভাইকিংস। জহুরুল ইসলাম ও মোহাম্মদ নবী দ্রুত ফিরে গেলে বিপর্যয় সৃস্টি হয় চিটাগং শিবিরে।

রান আউটের শিকার হয়ে ফিরেন আনামুল হক। এরই মধ্যে চিটাগং ভাইকিংসের তৃতীয় উইকেটের পতন হলো। আনামুল ১৬ বলে চারটি চারের সাহায্যে ২৫ রান করেন। পরে জহুরুলকে ফেরান আরাফাত সানি ও নবীকে আউট করেন রুবেল হোসেন।

দারুণ বোলিং করে চিটাগংয়ের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও ডোয়েন স্মিথকে ফেরান রংপুর রাইডার্সের স্পিনার সোহাগ গাজী।

দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রংপুর রাইডার্স। দলটির এটি প্রথম ম্যাচ। আর চিটাগংয়ের দ্বিতীয় ম্যাচ।

প্রথম ম্যাচে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছিল চট্টগ্রাম।

চিটাগং ভাইকিংস একাদশ: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), ডোয়েন স্মিথ, আনামুল হক, শোয়েব মালিক, জহুরুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, আব্দুর রাজ্জাক, মোহাম্মদ নবী, তাইমাল মিলস, জাকির হাসান, নাজমুল হাসান মিলন।

রংপুর রাইডার্স একাদশ: নাঈম ইসলাম (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, মুক্তার আলী, শহীদ আফ্রিদি, সোহাগ হাজী, রুবেল হোসেন, আরাফাত সানি, রিচার্ড গ্লিসন, মোহাম্মদ শাহজাদ।

LEAVE A REPLY