সাব্বিরের সেঞ্চুরির পরও হেরে গেল রাজশাহী

ক্রীড়া ডেস্ক
সাব্বিরের দুর্দান্ত সেঞ্চুরির পরও বরিশালের কাছে ৪ রানে হেরে গেল রাজশাহী কিংস। জয়ের পথ দেখিয়ে সাব্বিরের বিদায়ের পরই হয় ছন্দপতন। শেষ ওভারে মাত্র ৯ রান নিতে পারলনা সোহান-আবুলরা। তাই শেষ হাসি হাসল মুশফিকের বরিশালই। ১৯২ রান তাড়ায় রাজশাহী শেষ পর্যন্ত করে ১৮৮ রান।

লক্ষ্য তাড়ায় ব্যাটিং শুরু করেন রকিবুল হাসান এবং মুমিনুল হক। ইনিংসের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলেই বিদায় নেন রকিবুল। মনির হোসেনের বলে শাহরিয়ার নাফিসের তালুবন্দি হন রকিবুল।

এরপর জুটি গড়েন সাব্বির-মুমিনুল। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে আল আমিন ফেরান মুমিনুলকে। দলীয় ৪৯ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট হারায় রাজশাহী। মুমিনুল ১১ বলে ১২ রান করে ফিরে যান। পরের বলেই উমর আকমলকে এলবির ফাঁদে ফেলেন আল আমিন।

এরপর জুটি গড়েন সাব্বির আর সামিত প্যাটেল। এই জুটি থেকে আসে ৬৮ রান। ইনিংসের ১৩তম ওভারে আবু হায়দারের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ১৫ করে ফেরেন সামিত প্যাটেল।

তবে থেমে থাকেননি সাব্বির। একের পর এক ছক্কার ফুলঝুড়িতে মাত্র ৫৩ বলেই নিজের প্রথম বিপিএল শতক তুলে নেন তিনি। ৯টি চার আর ৯টি বিশাল ছক্কায় ১২২ রান করে বিদায় নেন সাব্বির।

ইনিংসের ১৬তম ওভারের শেষ বলে আল আমিন ফেরান সাব্বিরকে। দলীয় ১৫৯ রানে সাব্বিরের বিদায়ে রাজশাহী পঞ্চম উইকেট হারায়।

এরপর দলের ভরসা হয়ে ছিলেন দলপতি ড্যারেন স্যামি। কিন্তু, ইনিংসের ১৯তম ওভারে রায়াদ এমরিতের বলে বোল্ড হন স্যামি। ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ১৯ বলে ২৭ রান।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য রাজশাহীর দরকার হয় ৯ রান, হাতে ছিল চার উইকেট। শেষ ওভারে পেরেরার হাতে বল তুলে দেন মুশফিক। এই পেসারের বলে মাত্র ৪ রান নেয় আবুল ও সোহান।

এর আগে মুশফিক ৫২ বলে অপরাজিত ৮১ এবং শাহরিয়ার নাফিসের ৪৪ বলে ৬৩ রানে ভর করে ১৯২ রান সংগ্রহ করে বরিশাল

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দশম ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা মুশফিকুর রহিমের বরিশাল বুলস নির্ধারিত ২০ ওভারে চার উইকেট হারিয়ে তোলে ১৯২ রান। এবারের আসরে এটিই সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর। জবাবে, ১৮৮ রানে থেমে যায় রাজশাহীর ইনিংস।

LEAVE A REPLY