ভুল ঠিক করে আবারো ঢাকার ডাগআউটে মোস্তাফিজ

ক্রীড়া ডেস্ক
ইঞ্জুরির কারণে তিনি প্লেয়ার ড্রাফটেও ছিলেন না। তাকে ছাড়াই শেষ পর্যন্ত মাঠে গড়ালো বিপিএলের চতুর্থ আসর। কোনো দলের হয়ে খেলতে না পারলেও মোস্তাফিজ এখনও মনে প্রাণে ঢাকা ডায়নামাইটসেরই খেলোয়াড়। এ কারণে বেশ কয়েক ম্যাচে ঢাকাকেই সমর্থন করতে দেখা যাচ্ছে এই কাটার মাস্টারকে।

গতকাল নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে মাঠে নামে ঢাকা। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচটি ডাগআউটে বসেই উপভোগ করতে দেখা গেলো দি ফিজকে। তবে প্রথম ম্যাচের ন্যায় এবার আর ভুল করেননি মোস্তাফিজ। গলায় অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড ঝুলিয়ে ঢাকার ব্র্যান্ড এম্বাসেডর হয়েই ডাগআউটে ছিলেন কাটার মাস্টার।

সর্বনাশা ইনজুরি তরুণ পেসার মোস্তাফিজুর রহমানের ক্যারিয়ার থেকে কেড়ে নিচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ কিছু সময়। আইপিএল এবং ইংল্যান্ডের কাউন্টি খেলতে গিয়ে কাঁধের যে ইনজুরিতে পড়েছেন তিনি, তা থেকে এখনও সেরে উঠতে পারেননি। কাঁধে অস্ত্রোপচারের পর এখন চলছে তার রিহ্যাব পর্ব।

একজন ক্রিকেটারের মাঠ থেকে কী বাইরে বসে থাকতে ভালো লাগে? আর তিনি যদি হন মুস্তাফিজুর রহমানের মতো বিস্ময়কর প্রতিভা। তাহলে তো আরে কথাই নেই। সেই যে আইপিএল খেলে ইনজুরিতে পরেন। সেখান থেকে এখনও সম্পূর্ণ ফিট হয়ে উঠতে পারেননি। সাম্প্রতিক আফগানিস্তান সিরিজ আর ইংল্যান্ড সিরিজে দর্শক হয়েই থাকতে হয়েছে সাতক্ষীরার এই কৃতি সন্তানকে।

ব্যাতিক্রম হয়নি চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএলেও)। মাঠের বাইরেই থাকতে হচ্ছে মুস্তাফিজকে। এই জন্য অনেকেই বলছেন পূরণটা পাচ্ছেনা এবারের টুয়েন্টি-২০ এই আসর।

গত বিপিএলে মোস্তাফিজ ছিলেন ঢাকা ডায়নামাইটসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। তার বোলিংয়ের সামনে দিশেহার হয়ে পড়েছিল প্রতিপক্ষের বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানরা। সুস্থ থাকলে এবারও হয়তো তিনি খেলতেন ঢাকা ডায়নামাইটসের জার্সি গায়ে। কারণ, ঢাকার ফ্রাঞ্জাইজিটি তাকে ছেড়ে না দেওয়ারই ঘোষণা দিয়েছিল।

মোস্তাফিজুর রহমানকে ছাড়াই আফগানিস্তান আর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে হয়েছে বাংলাদেশকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ হারায় অনেকেই তার অনুপস্থিতিকেই দুষছেন।

তবে ভালো সংবাদ হচ্ছে, সামনের নিউজিল্যান্ড সফরেই খেলার জন্য পুরোপুরি ফিট হবেন মোস্তাফিজ। এই জন্য তাকে রেখেই নিউজিল্যান্ড সিরিজ এবং অস্ট্রেলিয়ায় প্রস্তুতি সফরের দলে করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY