আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতে সম্প্রতি নিষিদ্ধ হওয়া ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোটের ওপর নিষেদ্ধাজ্ঞা উঠিয়ে নিতে মোদি সরকারকে তিন দিন সময় বেঁধে দিয়েছেন দিল্লি এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। এর মধ্যে নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে না নিলে তীব্র প্রতিবাদ এবং বিশৃঙ্খলা তৈরি হবে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন এই দুই মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার দিল্লিতে এক সমাবেশে এই আল্টিমেটাম দেন তারা। খবর এনডিটিভির।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, আর জনগণের ধৈর্য্যের পরীক্ষা নেবেন না। তিন দিনের মধ্যে এই সিদ্ধান্ত ফিরিয়ে নিন। অন্যথায়  আন্দোলনে নামবে সাধারণ জনগণ। নোট বন্ধ করার তাৎক্ষণিক এই সিদ্ধান্তকে ১৯৪৭ সালের পর সবচেয়ে বড় কেলেঙ্কারি হিসেবে দেখছেন কেজরিওয়াল।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন। বাজারে নোট বন্ধ করার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের আগে কেন তিনি আগেই সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা করলেন না? এতে সাধারণ জনগণ ভোগান্তির শিকাড় হচ্ছে। আপনি (নরেন্দ্র মোদি) যদি সব সমস্যার সমাধান না করেন, আমরা আপনাকে ছাড়ব না। এখনো আমরা বেঁচে আছি।’

দুই মুখ্যমন্ত্রী একসঙ্গে আজ নয়া দিল্লিতে অবস্থিত ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ‘রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া’ পরিদর্শন করেছেন। এ প্রসঙ্গে কেজরিওয়াল এই টুইট বার্তায় বলেন, ‘কি পরিমাণ নোট দরকার? ইতিমধ্যে কত নোট ছাপা হয়েছে? পর্যাপ্ত নোট ছাপাতে আরও কতদিন লাগতে পারে? এসব জানার জন্য আমরা আজ রিজার্ভ ব্যাংকে গিয়েছিলাম।’

মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘এই রকম সঙ্কটে দেশের মানুষ আগে কখনো পড়েননি। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, স্বচ্ছ দিন আনবেন। আর দেশের মানুষ এখন কাঁদছেন। সবজি পচে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। শিশুদের খাবার পাওয়া যাচ্ছে না। মানুষের হাতে টাকা নেই। মানুষ খাবে কী?

LEAVE A REPLY