ক্রীড়া ডেস্ক

পঞ্চম ম্যাচেও হারের গণ্ডি থেকে বের হয়ে আসতে পারেনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। চট্টগ্রামে খেলা শুরু হওয়ার আগেই কুমিল্লা দলের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবার মুখেই একটা কথাই ঘুরছিল, একটা জয়ই পারবে দলের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে দিতে। ঢাকাতে যে প্রথম চার ম্যাচের চারটিতেই হেরেছেন মাশরাফিরা। কিন্তু চট্টগ্রামে এসেও ভাগ্যটা বদলায়নি। ব্যাটে-বলে দাপট দেখিয়ে কুমিল্লাকে ৯ উইকেটে হারিয়ে দিয়েছে রংপুর রাইডার্স। আর এতেই প্রথমবারের মত পাঁচ ম্যাচে টানা পাঁচ হারের অভিজ্ঞতা হলো কুমিল্লার।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুক্রবার দিনের দ্বিতীয় এই ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১২২ রান করে কুমিল্লা। জবাবে কেবল সৌম্য সরকারের উইকেট হারিয়ে ১৮ বল হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় রংপুর। রংপুর পঞ্চম ম্যাচে পেল চতুর্থ জয়।

ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে রংপুরের শুরুটা হয় উড়ন্ত।  দুই ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ ও সৌম্য সরকার মিলে ২ ওভারে বিনা উইকেটে তোলেন ২৪ রান। তবে সৌম্য এদিনও ইনিংস বড় করতে পারেননি। তাকে ফিরিয়ে ২৯ রানের জুটি ভাঙেন মাশরাফি। ১৫ বলে ২ চার ও এক ছক্কায় সৌম্য করেন ২২।

এরপর অবশ্য আর উইকেট হারাতে হয়নি রংপুরকে। মোহাম্মদ মিথুনের সঙ্গে শাহজাদের ৯৭ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ১৮ বল হাতে রেখেই জয় নিশ্চিত করে তারা।

ব্যক্তিগত ৪৫ রান থেকে ছক্কা হাঁকিয়ে জয়সূচক রান নেওয়ার পাশাপাশি ফিফটি পূর্ণ করেন শাহজাদ। আফগান ব্যাটসম্যান ৪৯ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় ৫১ রানে অপরাজিত থাকেন। ৩৯ বলে ৩ ছক্কা ও এক চারে ৪৫ রানে অপরাজিত ছিলেন মিথুন।

এর আগে টস জিতে কুমিল্লাকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন রংপুর রাইডার্স অধিনায়ক নাঈম ইসলাম। কিন্তু কুমিল্লার ব্যাটিংয়ের শুরুটা ভালো হয়নি এদিনও। ২১ রানের মধ্যেই ফিরে যান দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস। দুজনের কেউই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। সোহাগ গাজীর বলে এলবিডব্লিউ ইমরুল (৫), রানআউটে কাটা পড়েছেন লিটন (৪)।

দ্রুত দুই ওপেনারকে হারানোর পর তৃতীয় উইকেটে জুটি বাঁধেন আহমেদ শেহজাদ ও মারলন স্যামুয়েলস। এই দুজনের ফিফটিতেই শেষ পর্যন্ত ১২২ করতে পারে কুমিল্লা। তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে শেহজাদ ৪৫ বলে ৪ চার ও এক ছক্কায় করেন ৫২। চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়া স্যামুয়েলস ৪৬ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কায় করেন ৫২।

২৭ রানে ২ উইকেট নিয়ে রংপুরের সেরা বোলার রুবেল হোসেন। এ ছাড়া সোহাগ গাজী ও আনোয়ার আলী নেন একটি করে উইকেট।

ম্যাচসেরা নির্বাচিত হয়েছেন রংপুর রাইডার্সের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ শেহজাদ।

এ ম্যাচে ‘কাম ব্যাক, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস!’ গ্যালারিতে দর্শকের হাতে ধরা প্ল্যাকার্ডটাও উজ্জীবিত করতে পারল না মাশরাফিদের। পারল না আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে দেওয়া একটি জয় এনে দিতে।

LEAVE A REPLY