নিজস্ব প্রতিনিধি, জাবি:
চাঁদাবাজকে মারধরের ঘটনার ভিডিও ধারণ ও স্থিরচিত্র তোলার অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) এক সাংবাদিককে পিটিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার মূহাম্মদ মুসা (অর্থনীতি, ৪৩ তম আবর্তন) দৈনিক কালবেলার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি।

জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে চাঁদাবাজির সময় ফজলে রাব্বি নামে সাভারের এক যুবককে আটক করে প্রক্টর অফিসের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় মুসাসহ কয়েকজন ছাত্রলীগকর্মী। ওই যুবক বিআরটিসি কর্মচারীর ভুয়া পরিচয়ে যাত্রীবাহী বাস থেকে চাঁদা তুলছিলেন। এ সময় তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠের সামনে ছাত্রলীগের অস্থায়ী ভর্তি সহায়তা কেন্দ্রের কাছে আসলে শাখা ছাত্রলীগের ১০-১২জন নেতাকর্মী ওই চাঁদাবাজকে এলোপাতারি মারধর করে। এ সময় মুসা মারধরের স্থির চিত্র ও ভিডিও ধারন করলে তাকেও মারধর করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় সেখানে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব আহমেদ রাসেল উপস্থিত ছিলেন। পরে ওই চাঁদাবাজকে উদ্ধার করে পুলিশে সোপর্দ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

হামলার শিকার মো. মুসা বলেন, ‘চাঁদাবাজকে ধরে নিয়ে আসার সময় রাজিব ভাইয়ের অনুসারী ছাত্রলীগ কর্মীরা তাকে ছিনিয়ে নিয়ে মারধর শুরু করে। এ সময় মারধরের ছবি তুলতে গেলে রাজিব ভাইয়ের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমাকে মারধর করে। আমার কাছ থেকে ফোন কেড়ে নিয়ে ফোনে ধারন করা ভিডিও ও স্থিরচিত্রগুলো মুছে দেয়।’

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব আহমেদ রাসেল বলেন, ‘চাঁদাবাজকে জুনিয়ররা মারধর করেছে। মুসাকেও মারধর করেছে তবে সাংবাদিক কিনা সেটা প্রথমে বুঝতে পারেনি।’

এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, ‘চাঁদাবাজকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। বাইরের ঘটনা হওয়ায় পুলিশ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

LEAVE A REPLY