আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পিঁপড়ারাও চাষাবাদ করে! শুনতেই যেন অবাক লাগে। তবে এমনটি ঘটছে বলে জানিয়েছেন জার্মানির মিউনিখ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। গত সোমবার তারা বলছেন, প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্র ফিজির এক জাতের পিঁপড়ার আচরণ একেবারে খুদে কৃষকের মতো। তারা সযত্নে বীজ বোনে, তারপর সেগুলোতে সার দেয়। এভাবে প্রাণীটি প্রায় ছয় রকমের গাছের আবাদ করে।

নেচার প্ল্যান্টস সাময়িকীতে প্রকাশিত ওই গবেষণা বলছে, খাবারের জোগান দিতে পিঁপড়ার দল ছত্রাকের চাষ করে বলে আগেও দেখা গেছে। তবে প্রাণীটি যে অন্যান্য উদ্ভিদের চাষাবাদও করতে পারে, সেটা এবারই প্রথম কোনো গবেষণায় প্রমাণ হলো।

যে পিঁপড়ার কৃতিত্ব নিয়ে এত কথা হচ্ছে, তার বৈজ্ঞানিক নাম ফিলিড্রিস নাগাসাউ। এরা ছয়টি ভিন্ন রকমের স্কুয়ামেলারিয়া গাছের ফলের বীজ জড়ো করে। তারপর সেগুলো নানা বৃক্ষের ফাটল বা ভেতরের ফাঁপা জায়গায় রেখে দেয়। নিয়মিত গিয়ে দেখে বীজগুলো অঙ্কুরিত হয়ে চারাগুলো কতটা বড় হলো। পিঁপড়াগুলো সেখানেই মল ত্যাগ করে, যাতে চারাগাছগুলো মাটির উর্বরতা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় সার পায়।

গবেষকেরা বলছেন, বৃক্ষের কোটরে ওই চারাগাছের আশপাশের এলাকায় পিঁপড়ার দল নিজেদের সুরক্ষিত বসতি গড়ে তোলে। এ ক্ষেত্রে পিঁপড়া ও চারাগাছগুলো স্বতন্ত্র হলেও পরস্পরের সাহায্য ছাড়া টিকে থাকতে পারে না।

ঘটনাটি অবাকই বটে!

LEAVE A REPLY