সোসাইটিনিউজ ডেস্ক

শীতকালে বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ ব্যাপকভাবে কমে যায়। কারণ এ সময় আবহাওয়া থাকে শুষ্ক। এ কারণে ত্বক হয়ে যায় রুক্ষ, খসখসে। এ সময় অনেকেরই ঠোঁট ফাটে, কথা বলা ও হাসির ক্ষেত্রে যা বিড়ম্বনা সৃষ্টি করে।

অনেকেই তাই ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে চ্যাপস্টিক আর লিপবাম ব্যবহার করেন। এসব উপাদান হয়তো সাময়িক স্বস্তি দেয়, তা কিন্তু দীর্ঘমেয়াদি সমাধান নয়। জেনে নিন প্রাকৃতিক উপায়ে কীভাবে ঠেকাবেন ঠোঁট ফাটা:

মধু-ভ্যাসলিন: ভ্যাসলিন বা পেট্রোলিয়াম জেলি ত্বককে শুষ্কতা থেকে রক্ষা করে নরম রাখে। আর মধুতে আছে ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধী উপাদান। তাই মধু ও ভ্যাসলিন মিশিয়ে মাখলে ঠোঁট ফাটার উপশম হবে।

অলিভ অয়েল: এটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার ও লুব্রিকেন্ট। এতে যে ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে, তা ত্বকের শুষ্কতা দূর ও ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে পারে। দিনে দুবার ঠোঁটে অলিভ অয়েল মাখলে ঠোঁট নরম ও মসৃণ হয়।

ঘৃতকুমারী: এটি ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। এটি ত্বকের শুষ্কতা দূর করতে এবং ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে পারে। এতে যে প্রাকৃতিক উপাদান আছে, তা নিয়মিত ঠোঁটের সংস্পর্শে এলে ঠোঁট ফাটা সারে।

নারকেল তেল: এতে প্রচুর পরিমাণ ফ্যাটি অ্যাসিড আছে, যা ঠোঁটের শুষ্কতা দূর করে। ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে নিয়মিত নারকেল তেল লাগাতে পারেন।

LEAVE A REPLY