চলে গেলেন গুণী চলচ্চিত্র ও নাট্যাভিনেতা হাবিবুর রহমান মধু। তার পুরো নাম গোলাম হাবিবুর রহমান মধু হলেও মিডিয়া সংশ্লিষ্ট সবাই তাকে মধু দা নামেই চিনতেন। গতকাল রাত ১২.৩০ মিনিটে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাইহে রাজেউন)। তার একমাত্র পুত্র সন্তান বিদ্যুৎ বলেন, ‘বাবার পেটে বেশ কয়েকদিন ধরে সমস্যা হচ্ছিল। মঙ্গলবার তাকে হাসাপাতালে নিয়ে যাই। বাবা ওয়ার্ডেই ছিলেন। কিন্তু আইসিইউতে নেয়ার পর বাবার হার্টঅ্যাটাক হয়। তখনই ইন্তোকল করেন বাবা।’ বাবার আত্মার মাগফিরাত কামনা করে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন বিদ্যুৎ। মধুর স্ত্রী নূরজাহান গত বছর ইন্তেকাল করেছেন। রাজশাহীর কাজীহাটায় জন্মগ্রহণকারী গোলাম হাবিবুর রহমান মধুর মিডিয়াতে যাত্রা শুরু মাত্র আঠারো বছর বয়সে রাজশাহীর বিভিন্ন নাট্যদলে অভিনয় করে। ১৯৬২ সালে বেতারে এবং ১৯৬৯ সাল টেলিভিশনে কাজ শুরু করেন। সেই থেকে জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বহু নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। শুধু নাটকেই নয়, বেশকিছু উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। মিঠুন চক্রবর্তীর সঙ্গে সৈয়দ হাসান ইমাম ও শক্তি সামন্ত পরিচালিত ‘অবিচার’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে বেশ প্রশংসিত হয়েছিলেন। হাবিবুর রহমান মধু প্রসঙ্গে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে সৈয়দ হাসান ইমাম বলেন, ‘খুব ভালো মনের একজন মানুষ ছিল মধু। মধুর মৃত্যুর খবর শুনে খুব খারাপ লাগছে। আল্লাহ তাকে বেহেস্ত নসিব করুন।’ গতকাল তার আদাবরের বাসাসংলগ্ন জামে মসজিদে বাদ যোহর প্রথম নামাজে জানাযা এবং পরবর্তীতে বিকেল ৩.৩০ থেকে ৪টা পর্যন্ত শেষ শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য শিল্পকলায় নেয়া হয়। সেখানেই দ্বিতীয় নামাজে জানাযার পর আজিমপুর কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

LEAVE A REPLY