ক্রীড়া ডেস্ক
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ২০১৬-এর আসরে প্রত্যেক ফ্রাঞ্চাইজি ১০ ম্যাচ করে খেলে ফেলেছে। বাকি আছে আর দুই ম্যাচ করে।

প্লে-অফে জায়গা করে নিতে বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে আছে ঢাকা ডায়নামাইটস। টানা ৩ ম্যাচ জিতে সাকিব আল হাসানের দল ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে। প্লে-অফে ঢাকার জায়গা একরকম নিশ্চিত।

তবে এটাও বলা যায়, ঢাকার বাদ পড়ার সম্ভাবনাও পুরোপুরি উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না এখনো। আবার অঙ্কের হিসেবে কুমিল্লা, বরিশাল দুই দলের সুযোগ এখনো আছে।

সেজন্য বাকি দুই ম্যাচ হারতে হবে রাজশাহী, রংপুরকে। কুমিল্লা আর বরিশালকে ম্যাচ জিতলেও চলবে না, রান রেইটের সমীকরণটাও মাথায় রাখতে হবে।

খুলনা আর চিটাগাং নিজেদের বাকি থাকা দুই ম্যাচ থেকে একটা জয় তুলে নিলেই শেষ চারে জায়গা নিশ্চিত। তখন এলিমিনেটর, আর সেমিফাইনাল ম্যাচের প্রতিযোগী নির্ধারিত হতে পারে রান রেইটের ব্যবধানে।

উদ্বোধনী ম্যাচ জিতে চিটাগাং ভাইকিংস শুরুটা ভালো করলেও ঢাকা পর্বে আর জয়ের ধারায় ফিরতে পারেনি। চট্টগ্রাম পর্বে হোম গ্রাউন্ডের সুবিধা পুরোপুরি তুলে নিয়ে তামিমের দল আছে ২য় স্থানে, ঢাকায় ফিরেও তাদের জয়রথ চলছে। তাদের সাথে সমান ১২ পয়েন্ট নিয়ে ৩য় স্থানে আছে খুলনা টাইটান্স।

পয়েন্ট সমান হলেও মাহমুদুল্লাহর দল রান রেইটের হিসেবে আছে বেশ পেছনে। ৪র্থ আর ৫ম স্থানে থাকা রাজশাহী কিংস আর রংপুর রাইডার্স-এর পয়েন্ট সমান হলেও রান রেইট ভালো হওয়ায় রাজশাহী আছে সেরা চারে।

গতবারের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা আর বরিশাল বুলসের অর্জন ৬ পয়েন্ট করে। এই দু’টো দলের অবস্থানেও পার্থক্য গড়ে দিয়েছে রান রেইটের হিসাব।

টেবিলের সর্বনিম্নে অবস্থান করা কুমিল্লা শেষ দুই ম্যাচেই জয় তুলে নিয়েছে। শুরুতে ভালো খেলা বরিশাল চট্টগ্রামে গিয়ে খেই হারিয়ে এখনো ফিরতে পারেনি জয়ের ধারায়, কুমিল্লা ঢাকা পর্বের পর চট্টগ্রাম পর্বেও ছিলো অনুজ্বল। ফিরতি পর্বে ঢাকায় এসে ২ ম্যাচ জিতে কিছুটা হলেও মান রক্ষা করেছে।

প্লে অফে জায়গা করে নেবার লড়াইয়ে ঢাকা ছাড়া আর সব ফ্রাঞ্চাইজিকেই শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। মূলত কুমিল্লার শেষ দুই ম্যাচের জয়ই বিপিএল-এর ৪র্থ আসর বেশ জমিয়ে দিয়েছে। এখন তাই শুধু ম্যাচ জিতলেই হবে না, অন্যদলের হার, রান রেইটের সমীকরণ ইত্যাদি চলে আসবে প্লে অফে জায়গা করে নেবার লড়াইয়ে।

LEAVE A REPLY