ধর্ষণ ও খুনের দায়ে ফাঁসি কার্যকরের ২১ বছর পর চীনের এক নাগরিককে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন দেশটির আদালত।অব্যাহতি পাওয়া ওই ব্যক্তির নাম নি শুবিন।

অভিযোগ ছিল, হিবেই প্রদেশের সিজিয়াঙের ক্যাং নামের এক ১৯ বছর বয়সী নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা করেছেন নি শুবিন। এই অভিযোগে ১৯৯৫ সালে নি শুবিনকে ফায়ারিং স্কোয়াডে দিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। তখন শুবিনের বয়স ছিল মাত্র ২০ বছর।

শুবিনের বিচার ছিল অস্পষ্ট এবং তার বিরুদ্ধে যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ ছিল না বলে জানাচ্ছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট ।

শুবিনের পরিবার দুই দশক ধরে তার অব্যাহতির দাবি জানিয়ে আসছিল। সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছে শুবিনের পরিবার।

চীনে দণ্ডিত ব্যক্তিকে অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়ার ঘটনা খুবই বিরল।

এদিকে যে অভিযোগের ভিত্তিতে শুবিনকে ফাঁসি দেয়া হয়েছিল সেই অভিযোগে ওয়াং সুজিন নামের আরেক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ২০০৫ সালে আদালতে তিনি জানিয়েছিলেন, তিনিই ক্যাংয়ের খুনের জন্য দায়ী। এছাড়াও সুজিন আরও তিনজন নারীকে ধর্ষণ ও খুন করেছেন। ধর্ষণ ও খুনের অভিযোগে সুজিনেরও ফাঁসির আদেশ দেয়া হয়েছে। কিন্তু তা এখনও কার্যকর করা হয়নি।

এর আগে ইনার মঙ্গোলিয়ার এক কিশোরকে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ১৮ বছর পর গত ২০১৪ সালে তাকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

পরে ওই কিশোরের বাবা-মাকে ৪ হাজার ৮৫০ মার্কিন ডলার ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়। একইসঙ্গে পরবর্তীতে এই মামলার সঙ্গে জড়িত ২৭ কর্মকর্তাকে শাস্তি দেয়া হয়।

LEAVE A REPLY