চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই)-এর কৌশলগত বিনিয়োগকারী (স্টাট্রেজিক ইনভেস্টর) হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রীয় মালীকানাধীন পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)।

এ লক্ষ্যে সম্প্রতি আইসিবির সঙ্গে সিএসইর একটি প্রাথমিক সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ডিমিউচুয়ালাইজেশন স্কিম অনুযায়ী আইসিসিবিকে কৌশলগত বিনিয়োগকারী করার উদ্দেশে এই চুক্তি হয়েছে। আইসিবির পরিচালনা পর্ষদে অনুমোদনের পরেই কৌশলগত বিনিয়োগকারীর বিষয়টি চূড়ান্ত হবে।

স্টক এক্সচেঞ্জের মালিকানা থেকে ব্যবস্থাপনা আলাদা বা ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইনের বিধান অনুযায়ী, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছে শেয়ার বিক্রির বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

বিধান অনুযায়ী, ডিমিউচুয়ালাইজেশন-পরবর্তী স্টক এক্সচেঞ্জের সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ বরাদ্দ কৌশলগত বিনিয়োগকারীর জন্য। আর এ উদ্দেশ্যেই আগ্রহপত্র আহ্বান করে আহ্বান করে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ।

এতে বলা হয়, কৌশলগত বিনিয়োগকারী থেকে নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদিত দেশি বা বিদেশি কোনো স্টক এক্সচেঞ্জ, খ্যাতনামা আর্থিক প্রতিষ্ঠান আবেদন করতে পারবে। উন্নততর প্রযুক্তিসুবিধা, ব্যবস্থাপনাগত ও ব্যবসা উন্নয়নে পরামর্শক সেবা পাওয়াই কৌশলগত বিনিয়োগকারী নেয়ার প্রধান উদ্দেশ্য।

কৌশলগত বিনিয়োগকারী নিয়োগের জন্য বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) নির্ধারিত সময়সীমা অনুযায়ী আগামীকাল (বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর) শেষ হচ্ছে। বিদেশি কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছে থেকে তেমন সাড়া না পেয়ে দেশীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক করছে সিএসই ।

LEAVE A REPLY