জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মোহম্মাদ মাহমুদুর রহমান পরিত্যাক্ত পলিথিন ব্যাগ থেকে ডিজেল ও পেট্রোল তেল উৎপাদন কৌশল আবিস্কার করেছেন। প্লাস্টিক থেকে জ্বালানী তেল উৎপাদনের কৌশল সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন গতকাল মঙ্গলবার উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান-এর নিকট পেশ করা হয়।

উপাচার্য এই উৎপাদন কৌশলকে একটি যুগান্তকারী সাফল্য বলে মন্তব্য করেছেন।

মাহমুদুর রহমান পরীক্ষামূলকভাবে ৩০ গ্রাম প্লাস্টিক ব্যাগ থেকে ১৫ মি.লি. জ্বালানি তেল উৎপাদন করেছেন। এ প্রক্রিয়ায় ১ কেজি প্লাস্টিক থেকে আধা লিটার তেল উৎপাদন সম্ভব। এই তেলসম্পূর্ণ সালফার মুক্ত। এ প্রক্রিয়ায় ১৭% গ্যাস, ৪৩% পেট্রোল, ২৩% কেরোসিন, ১৪% ডিজেল এবং ৩% কার্বন রেসিডিউ তৈরি হয়। এতে প্রতি লিটার জ্বালানী তৈল ৩০ টাকা হারে বাজারজাত করা সম্ভব।

প্রাথমিক অবস্থায় স্বল্প পরিসরে একটি মেশিন থেকে প্রতি মাসে কমপক্ষে ৩০০ লিটার তেল উৎপাদন করা যাবে বলে জানা যায় । এর ফলে পরিত্যক্ত প্লাষ্টিক ব্যাগ থেকে জ্বালানী তেল উৎপাদনের মাধ্যমে প্লাষ্টিকের ক্ষতিকর প্রভাব এবং পরিবেশ দূষণ হতে মুক্ত রাখবে। এই তেলে যানবাহন, সেচ পাম্পসহ সকল প্রকার জ্বালানী হিসাবে ব্যবহার করা যাবে। এই প্রক্রিয়ায় গ্যাস থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করাও সম্ভব। এর ফলে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে একটি যুগান্তকারী বিপ্লব সূচিত হবে বলে বিশেষজ্ঞগণের অভিমত।

ড. মোহাম্মদ মাহমুদুর রহমান এই প্রকল্পে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে আর্থিক সহায়তা পেলে বড় পরিসরে প্লাস্টিক হতে জ্বালানি তেল উৎপাদনের প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

LEAVE A REPLY