‘তিন তালাক’কে অসাংবিধানিক বলে রায় দিয়েছে ভারতীয় হাইকোর্ট। দেশটির এলাহাবাদ হাইকোর্ট এ রায় ঘোষণা করে। খবর জিনিউজ ও আনন্দবাজার পত্রিকা।

রায়ে বলা হয়, “তিন তালাক অসাংবিধানিক। মুসলিম মহিলাদের মৌলিক অধিকার খর্ব করে এই তিন তালাক।” সেইসঙ্গে আদালত আজ একহাত নিল অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডকেও। সাফ জানিয়ে দিল, “কোনও পার্সোনাল ল’ বোর্ড সংবিধানের ঊর্ধ্বে নয়।”

আজ বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) ওই আদালত এক আদেশে তিন তালাক সম্পর্কে এই মন্তব্য করেন।

প্রসঙ্গত, “মহিলাদের নিজের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে”, এই যুক্তিতে মোদী সরকার ‘তিন তালাক’ নিষিদ্ধ করার পক্ষে সওয়াল করে। কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড। ‘তিন তালাক’ তুলে দেওয়ার পক্ষে-বিপক্ষে শুরু হয় বিতর্ক।

এ ছাড়া সুপ্রিম কোর্টেও তিন তালাকের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। একাধিক নারী এটি চ্যালেঞ্জ করেছেন। তিন তালাকের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা আবেদনের শুনানি করছেন সুপ্রিম কোর্ট।

উল্লেখ্য, মুসলিমদের বিবাহ বিচ্ছেদের এই পদ্ধতি নিয়ে বিতর্ক বহু দিনের। এত দিন পর্যন্ত বিবাহ-বিচ্ছেদ, উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত সম্পত্তির মামলার জন্য মুসলিমরা আলাদা আদালতে যেতেন। কিন্তু তিন তালাক কোরান-বিরোধী বলে দাবি করে ‘ভারতীয় মুসলিম নারী আন্দোলন’ নামে এক সংগঠন। এ বিষয়ে দীর্ঘদিন ধরে তারা আন্দোলন চালিয়ে আসছে।

সম্প্রতি ‘তিন তালাক’ নিষিদ্ধ করা নিয়ে প্রায় ৫০ হাজার মুসলমান নারী-পুরুষ একটি আবেদনপত্রে সই করেন। ‘তিন তালাক’-এর ‘যন্ত্রণা থেকে মুক্তি’র জন্য নিজের ও মেয়ের জীবননাশের অনুমতি চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচরপতিকে রক্ত দিয়ে চিঠিও লেখেন এক মা। এই পরিস্থিতিতে এলাহাবাদ হাইকোর্টের এই রায়। এ নিয়ে আদালতে একাধিক আবেদনও জমা পড়ে। এ প্রথা বন্ধের দাবিতে মুসলিম নারীদেরই একটি অংশ সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেন।

LEAVE A REPLY