দুটি এয়ারলাইন্সে করে হজে যাওয়ার সরকারি সিদ্ধান্তকে অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। এর ফলে নিজেদের পছন্দ মতো যে কোনো এয়ারলাইন্সে করে যাত্রীরা হজে যেতে পারবেন বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

এ বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন খারিজ করে বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

এদিন, আদালতে হজযাত্রীদের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও ব্যারিস্টার মাহবুব শফিক।

makka

প্রসঙ্গত, বিমান বাংলাদেশ ও সৌদি এয়ারলাইন্স ছাড়া অন্য কোনো পরিবহনে হাজিরা হজে যেতে পারবে না বলে ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল সিদ্ধান্ত নেয় বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।

এ সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) এর সহ-সভাপতি আব্দুল কবির খান, মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহ ও রেজাউল ইসলাম নামের এক হজ যাত্রী। এ রিটের প্রেক্ষিতে একই বছরের ২৯ জুলাই হাইকোর্ট রুল জারি করেন এবং পছন্দমতো বিমানে হজে যাওয়ার অনুমতি দিয়ে আর্ন্তবর্তীকালীন আদেশ দেন।

পরে এ বিষয়ে জারি করা রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে পরবর্তী বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি মো. হাবিবুল গণির হাইকোর্ট বেঞ্চ নিজেদের পছন্দমতো যে কোনো এয়ারলাইন্সে করে যাত্রীরা হজে যেতে পারবেন বলে রায় দেন। এরপর রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করলে এদিন তা খারিজ করে দেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ।

LEAVE A REPLY