টুর্নামেন্ট জুড়ে বল হাতে ছিলেন অসাধারণ। ব্যাটিংয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে করেছেন রান। মাঠের ভেতরে বাইরে সতীর্থদের কাছে ছিলেন অনুপ্রেরণাদায়ী। সব মিলিয়ে ফরহাদ রেজার পারফরম্যান্সে মুগ্ধ ড্যারেন স্যামি। রাজশাহী কিংস অধিনায়ক বলছেন, জাতীয় নির্বাচকদের সুদৃষ্টি পাওয়া উচিত এই অলরাউন্ডারের।
এবারের বিপিএলে রাজশাহীর সহ-অধিনায়ক ছিলেন ফরহাদ। অধিনায়ক স্যামি তাই তাকে দেখেছেন ঘনিষ্ঠভাবে। মাঠের পারফরম্যান্স, অনুশীলন আর ড্রেসিং রুমে রাজশাহী অধিনায়ক ফরহাদকে সবসময় পেয়েছেন সামনের কাতারে।

“আমাদের দলের জন্য ফরহাদ ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ও বিশাল-হৃদয় ক্রিকেটার, সব সময় শিখতে চায়। আমার সহ-অধিনায়ক হিসেবে ছিল দারুণ অনু্প্রেরণাদায়ী।”

“টুর্নামেন্ট জুড়েই ফরহাদ ছিল অসাধারণ। বিশেষ করে গুরুত্বপূর্ণ সময়ের যেভাবে বোলিং করেছে। আমাদের হয়ে ১৭ ও ১৯তম ওভার বা ১৮ ও ২০তম নিয়মিতই করেছে সে। সবসময় হয়ত সফল হয়নি। তবে চ্যালেঞ্জটা নিতে কখনোই পিছপা হয়নি। দেখিয়েছে যে কঠিন পরিস্থিতিতে ম্যাচ জেতাতে সক্ষম।”

স্যামির মতে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও সীমিত ওভারে খেলতে পারেন ফরহাদ।

“ও হয়ত খুব গতিময় নয়, তবে দারুণ কার্যকর। আরও কয়কজনের সঙ্গে নিজেকে দারুণভাবে তুলে ধরেছে ও, যারা বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পারে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে। আমার মনে হয়, নির্বাচকদের উচিত ওর দিকে তাকানো।”

রাজশাহী কিংসের হয়ে এবার ১৪ উইকেট নিয়েছে ফরহাদ, রান করেছেন ১০৪। স্যামি যেমনটি বলেছেন, পাওয়ার প্লে আর শেষের ওভারগুলোতে বরাবরই রাজশাহীর ভরসা ছিলেন ফরহাদ। রান সংখ্যা খুব বড় রান হলেও শেষ দিকে নেমে করেছেন গুরুত্বপূর্ণ কিছু রান।

৩০ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার বাংলাদেশের হয়ে খেলেছেন ৩৪টি ওয়ানডে ও ১৩টি টি-টোয়েন্টি। সবশেষ খেলেছেন ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে।

LEAVE A REPLY