শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের তিনটি আবাসিক হলে রোববার গভীর রাতে পুলিশি তল্লাশি চালিয়েছে হল প্রশাসন। ঘণ্টাব্যাপী এ তল্লাশিতে তিন হলের বিভিন্ন কক্ষ থেকে জিআই পাইপ ও রাম দা উদ্ধার করা হয়।

রাত ২টার দিকে শহপরাণ হল, দ্বিতীয় ছাত্র হল ও সৈয়দ মুজতবা আলী হলে এ তল্লাশি চালানো হয়।

এদিকে হঠাৎ হল প্রশাসনের এ ধরনের অভিযানের কঠোর সমালোচনা করেছেন শিক্ষার্থীরা। বিশেষ কোনো কারণ ছাড়াই এ ধরনের অভিযানকে হয়রানি বলে সাামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা।

সূত্র জানায়, শাবি শাখা ছাত্রলীগ নিয়ন্ত্রিত বিভিন্ন কক্ষ থেকেই মূলত অস্ত্রগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। তবে হল প্রশাসনের তল্লাশির খবর দুই ঘণ্টা আগে জানতে পেরে অস্ত্রগুলো সরিয়ে ফেলে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা। এমনকি সোমবার সকালে হলের অভ্যন্তরীন খোলা অংশে অনেক অস্ত্র পড়ে থাকতে দেখা গেলেও কিছুক্ষণের মধ্যে তা ছাত্রলীগ নেতাদের সরিয়ে নিতে দেখা যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ছাত্রলীগ নেতা জানান, আমরা তল্লাশি শুরুর দুই ঘণ্টা আগে জানতে পারি তল্লাশির খবর।

দ্বিতীয় ছাত্র হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. এ এস এম হাসান জাকিরুল ইসলাম বলেন, মূলত শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থেই এ ধরনের অভিযান চালানো হয়েছে ।

শাহপরাণ হলের প্রভোস্ট মো. শাহেদুল হোসাইন জানান, হলগুলোতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও বহিরাগত অবস্থান করছে এমন তথ্যের ভিত্তিতেই পুলিশের সহযোগিতায় এ ধরনের অভিযান চালানো হয়েছে। তিনি বলেন শাহপরাণ হল থেকে ৪৩ টি জিআই পাইপ ও ১৪টি রামদা পাওয়া গেছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়।

জালালাবাদ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন জানান, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আহ্বানে ডেপুটি কমিশনার ফয়সাল মাহমুদ এর নেতৃত্বে তারা এ অভিযান চালায়।

LEAVE A REPLY