নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণের পর তা নিয়ে আলোচনা করতে দলটির শীর্ষ নেতাদের ডেকেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

আজ মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এই বৈঠক হবে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপির নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে আয়োজিত মিলাদ মাহফিল শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আজ সকালে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, ‘রাতে চেয়ারপারসন শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এতে চূড়ান্ত হবে সংলাপে কে কে অংশ নেবেন বা কোনো কমিশনারের নাম প্রস্তাব করা হবে কি না।’

বিএনপি কী প্রস্তাব দেবে, এমন প্রশ্নে দলটির মহাসচিব বলেন, ‘চেয়ারপারসনের দেওয়া প্রস্তাব আপনারা ভালোভাবে পড়লে দেখবেন আমরা কী কী প্রস্তাব করব। কারণ সবকিছু ওই প্রস্তাবের মধ্যেই আছে।’

বিএনপির সূত্র বলেছে, বিএনপির প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। নির্বাচন কমিশন গঠন ও নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে গত ১৮ নভেম্বর এক অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়া যে ১৩ দফা প্রস্তাব দিয়েছেন, তার ওপর আলোচনা করবে বিএনপি। তবে রাষ্ট্রপতি সার্চ কমিটি গঠনের বিষয়ে আলোচনা তুললে তাঁরা কয়েকজন সাবেক বিচারপতি ও শিক্ষাবিদের নাম পরামর্শ করতে পারেন।

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে শেষ হবে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা ২০১৯ সালে। ২০১২ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনার পর সার্চ কমিটির মাধ্যমে বর্তমান নির্বাচন কমিশন গঠন করেছিলেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন গতকাল সোমবার বলেন, ১৮ ডিসেম্বর বিকেল সাড়ে চারটায় বিএনপি, ২০ ডিসেম্বর জাতীয় পার্টি, ২১ ডিসেম্বর এলডিপি ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ও ২২ ডিসেম্বর জাসদকে (ইনু) ডাকা হয়েছে। নিবন্ধিত বাকি দলগুলোকে পর্যায়ক্রমে ডাকা হবে।

LEAVE A REPLY