আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণার সময় ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের ই-মেইল হ্যাকিংয়ের সঙ্গে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ব্যক্তিগতভাবে জড়িত ছিলেন বলে ধারণা করছেন মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। ব্যক্তিগত প্রতিহিংসার অংশ হিসেবে যেসকল হ্যাকিং হয়েছে তার সঙ্গে পুতিন জড়িত থাকতে পারে বলছেন গোয়েন্দারা। গতকাল বুধবার এনবিসি নিউজের এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়।

দুইজন কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে এনবিসি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন ডেমোক্র্যাটদের কাছ থেকে কিভাবে বিভিন্ন উপকরণ হ্যাক করতে হবে এবং তা ফাঁস করতে হবে-ব্যক্তিগতভাবে সে নির্দেশনা দিয়েছিলেন পুতিন। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ‘গোয়েন্দা কর্মকতারা বিশ্বাস করেন, এ নতুন মূল্যায়নের ব্যাপারে তাদের ‘উচ্চ পর্যায়ের আস্থা রয়েছে’।

এএফপির খবরে জানানো হয়, কীভাবে মার্কিন ডেমোক্র্যাটদের ই-মেইলের তথ্য হ্যাক করা হবে, পুতিন নিজেই সেই নির্দেশ দিয়েছিলেন। ইউএস টেলিভিশন নেটওয়ার্ক দুজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে। ওই দুই কর্মকর্তা বলছেন, এ ঘটনায় পুতিনের ব্যক্তিগত যোগসাজশের ব্যাপারে তাঁদের কাছে যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ রয়েছে।

গত সপ্তাহে ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে জানানো হয়, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর মূল্যায়ন বলছে, রাশিয়া মার্কিন কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ই-মেইল হ্যাক করেছে। রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জেতাতেই রাশিয়া এমনটা করেছে।

২০১১ সালে রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন। সে সময় পুতিন বলেন, তিনি হিলারি ক্লিনটনকে কখনই ক্ষমা করবেন না। রাশিয়ায় পুতিনবিরোধী বিক্ষোভেও হিলারি উসকানি দিয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা এনবিসিকে বলেন, হিলারির ওপর প্রতিশোধ নিতেই পুতিন তাঁর ই-মেইল হ্যাকিংয়ে ভূমিকা রাখেন।

তবে রিপাবলিকান দল থেকে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ই-মেইল হ্যাক হওয়ার সঙ্গে রাশিয়ার যোগসাজশের কথা আগেই প্রত্যাখ্যান করেন। মার্কিন আইনপ্রণেতারা হিলারির ই-মেইল হ্যাক হওয়ার ঘটনায় আনুষ্ঠানিক কংগ্রেস তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে।

মার্কিন কর্মকর্তাদের দাবি, রাশিয়া ওই তথ্য হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে সংগ্রহ করে উইকিলিকসের কাছে হস্তান্তর করেছে। উইকিলিকস প্রতিনিয়ত ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারিকে অপদস্ত করার জন্য তথ্য প্রকাশ করে আসছে বলে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়।

অপর এক জ্যেষ্ঠ গোয়েন্দা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্ট জানায়, রুশ কর্তৃপক্ষ যে উইকিলিকসের কাছে ওই হ্যাকিংয়ের শিকার হওয়া ইমেইল তুলে দেয়, তার কোনও নিশ্চিত প্রমাণ গোয়েন্দাদের হাতে নেই।

LEAVE A REPLY