হত্যাচেষ্টা মামলায় খাদিজা বেগমকে আগামী ৮ জানুয়ারি আদালতে হাজির হয়ে সাক্ষ্য দিতে বলেছেন বিচারক। আজ বৃহস্পতিবার সিলেটের মুখ্য মহানগর বিচারিক হাকিম মো. সাইফুজ্জামান হিরো এ নির্দেশ দিয়েছেন।

আজ রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের চিকিৎসক রেজাউস সাত্তার খাদিজা বেগমের হত্যাচেষ্টা মামলায় আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। তিনি খাদিজার চিকিৎসার বিবরণ দিয়েছেন। তিনি বলেন, খাদিজা এখন সাভারের সিআরপিতে আছেন। বর্তমানে খাদিজার যে শারীরিক অবস্থা, এতে তিনি আদালতে সাক্ষ্য দিতে পারবেন।
এরপরই আদালত আগামী ৮ জানুয়ারি খাদিজা বেগমকে আদালতে হাজির হতে বলেন।

আদালত সূত্র জানায়, এ মামলায় গত ১১ ডিসেম্বর ১৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ হয়েছে। এই ১৫ জনের মধ্যে খাদিজার বাবা মাসুক মিয়া, মা মনোয়ারা বেগমও ছিলেন। এর আগে ৫ ডিসেম্বর প্রথম পর্যায়ের ১৭ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। মামলার ৩৭ সাক্ষীর মধ্যে ৩৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ হয়েছে।

গত ৪ অক্টোবর সিলেট এমসি কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে বিএ (পাস) পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়ার পর খাদিজাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতা বদরুল আলম। ঘটনার পরপরই বদরুলকে ধরে পুলিশে দেয় স্থানীয় জনতা।

এ ঘটনায় পরদিন হত্যাচেষ্টার অভিযোগে বদরুলকে একমাত্র আসামি করে মামলা করেন খাদিজার চাচা আবদুল কুদ্দুস। পরে আদালতে হত্যাচেষ্টার দায় স্বীকার করে বদরুল জবানবন্দি দিয়েছেন। ঘটনার ৫৫ দিনের মাথায় পুলিশ বদরুলকে একমাত্র অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দিলে বিচার-প্রক্রিয়া শুরু হয়।

LEAVE A REPLY