সোসাইটিনিউজ ডেস্ক:
অর্থমন্ত্রী এ এম এ মুহিত দৃঢ়তার সঙ্গে বলেছেন, বাংলাদেশ ২০৩০ সালের আগেই টেকসই উন্নয়নের (এসডিজি) অনেক লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করবে এবং এ লক্ষ্যে সব বাধা পেরিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।
সিরডাপ মিলনায়তনে রবিবার মিডিয়া প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন, সরকার এসডিজি অর্জনে কাজ করছে।  দারিদ্র্য বিমোচন অব্যাহত কোনো প্রক্রিয়া হতে পারে না, বরং এ প্রক্রিয়ার সাফল্য নিশ্চিত হতে হবে।  ইন্টারপ্রেস সার্ভিস ও ইউএন ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এ কর্মশালার আয়োজন করছে।
জলবায়ু পরিবর্তনকে প্রধানতম সমস্যা হিসেবে অভিহিত করে মুহিত বলেন, প্রাকৃতিক এই দৃশ্যপটের কারণে উপকূলীয় মানুষ বন্যা, নদী ভাঙন, ঘূর্ণিঝড় ও খরাসহ বিভিন্ন সমস্যার কবলে পড়েছে।  এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ শিল্পোন্নত দেশগুলোর অধিক কার্বন নিঃসরণের বোঝা বইছে।
বৈশ্বিক উষ্ণায়নের জন্য শিল্পোন্নত দেশগুলোর কর্মকাণ্ড পৃথিবীর জন্য বিরাট চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।  কিন্তু বৈশ্বিক কার্বন নিঃসরণের সরণীতে বাংলাদেশের অবস্থান একেবারে নিম্ন হলেও আমরা শিল্পোন্নত দেশগুলোর কাছ থেকে এ ব্যাপারে কোনো ক্ষতিপূরণ পাইনি। বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনর নেতিবাচক প্রভাব নিরসনে নিজস্ব তহবিল থেকে কর্মসূচি নিয়েছে।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে অর্থনীতিবিদ কাজী খলিকুজ্জামান আহমাদ ও ইন্টারপ্রেস সার্ভিসের ফারহানা হক রহমান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।