দৈনিক জনতার গাইবান্ধা প্রতিনিধি ও স্থানীয় জনসংকেত পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার মিলন খন্দকারের ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মানববন্ধন ও সড়কে কলম-ক্যামেরা রেখে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন সাংবাদিকরা।

শনিবার বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত জেলা শহরের ডিবি রোডের আসাদুজ্জামান মার্কেটের সামনে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন প্রিন্ট, অনলাইন ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার শতাধিক সাংবাদিক অংশ নেন।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের সভাপতি কেএম রেজাউল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবু, গাইবান্ধা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি রেজাউন্নবী রাজু, দৈনিক জনসংকেত পত্রিকার সম্পাদক দীপক কুমার পাল প্রমুখ।

বক্তারা বলেন জেলা সাবরেজিস্ট্রি অফিস বর্তমানে দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে। এখানে কোনো সাংবাদিককে ঢুকতে দেয়া হয় না। গাইবান্ধা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি নুর-এ হাবিব টিটোন কিছু ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী সার্বক্ষণিক অফিসে রাখেন।

ইতোপূর্বে দুর্নীতির খবর প্রকাশ করায় নুর-এ হাবিব টিটোন ও লোকজন সাংবাদিক মিলন খন্দকারের ওপর হামলা ও মারধর করেন। এ ঘটনায় চারজনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা করেন মিলন খন্দকার। ঘটনার সঙ্গে জড়িত নুর-এ হাবিবসহ আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধন শেষে নুর-এ হাবিব টিটোনসহ আসামিদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতারের দাবিতে সব সাংবাদিক ট্রাফিক মোড়ের চৌমাথার সড়কে বসে কলম ও ক্যামেরা রেখে সড়ক অবরোধ করেন। পরে পুলিশ প্রশাসন ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেন সাংবাদিকরা।

প্রসঙ্গত মিলন খন্দকার দুই সাংবাদিকসহ গত বৃহস্পতিবার দুপুরে দলিল লেখকদের কর্মবিরতির সংবাদ সংগ্রহ করতে জেলা রেজিস্টার কার্যালয়ে গেলে গাইবান্ধা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি নুর-এ হাবিব টিটোন ও তার লোকজন সাংবাদিক মিলন খন্দকারকে গালিগালাজ ও তার ওপর হামলা চালিয়ে মারধর ও ক্যামেরা ভাঙচুর করে।

LEAVE A REPLY