বিজিবির ভূমিকায় সীমান্তে নিহতের সংখ্যা কমেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একদিন বিজিবি (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ) হবে বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ সীমান্তরক্ষী বাহিনী।

মঙ্গলবার বিজিবি দিবস উপলক্ষে রাজধানীর পিলখানায় দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এ সময় বিজিবি’র উন্নয়নের সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিজিবির জন্য আধুনিক বাইনোকুলারসহ আধুনিক সরঞ্জামাদি কেনা হচ্ছে। বিজিবির চারটি রিজিয়নাল ডিভিশন স্থাপন করা হয়েছে। বর্ডার সিকিউরিটি ব্যুরো স্থাপন করা হয়েছে। ৮৮তম ব্যাচে প্রথমবারের মতো ৮৭ জন নারী বিজিবি সদস্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া, ৮৯তম ব্যাচে ৯২ জন, ৯০তম ব্যাচে ১০০ জন নারী সদস্য বিজিবিতে নিয়োগের প্রক্রিয়া চলমান।

অস্থিতিশীল পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিজিবির ভূমিকা প্রশংসা করে শেখ হাসিনা বলেন, বিগত বছরগুলোতে দেশের অভ্যন্তরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় আপনাদের ভূমিকা প্রশংসনীয়। বিশেষ করে বিএনপি-জামায়াতের আগুন সন্ত্রাসের সময় বিজিবির সাহসী ভূমিকা সারা বিশ্বে সুনাম কুড়িয়েছে।

অনুষ্ঠানে পিলখানায় সংঘটিত বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেই ঘটনায় স্বজন হারানোর বেদনা নিয়ে অনেকেই আজ বেঁচে আছেন। আমি তাদের সঙ্গে সহমর্মিতা প্রকাশ করছি।

LEAVE A REPLY