যে লক্ষ্য ও আদর্শ নিয়ে মুক্তিযুদ্ধে লড়াই করা হয়েছিল, তা আজ মানা হচ্ছে না। ফলে দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা হচ্ছে না। বর্তমানে সুশাসন চরমভাবে পদদলিত। এ জন্য কখনো ধর্মীয় উগ্রবাদ আবার কখনো উন্নয়নের গণতন্ত্রের কথা বলে সুশাসন ব্যাহত করা হচ্ছে।

আজ শনিবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউশনে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর ৬ষ্ঠ জাতীয় সম্মেলনে বক্তরা এ মন্তব্য করেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান বলেন, দেশে মুক্তিযুদ্ধের শাসন না চলায় সুশাসন প্রতিষ্ঠা হচ্ছে না। দুর্বৃত্তদের হাতে রাজনীতি চলে গেছে। তা উদ্ধারের বিকল্প রাজনৈতিক বলয় গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ যখন জনগণের ঘরে আগুন দেয় সেখানে কিভাবে সুশাসন নিশ্চিত হবে। তাই কখনো ধর্মীয় উগ্রবাদ আবার কখনো তথাকথিত গণতন্ত্রের নামে সুশাসন ব্যবহত করা হচ্ছে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এনাম আহমেদ চৌধুরী বলেন, দেশে যে গণতন্ত্র চলছে, আমরা কখনো এই গণতন্ত্র আশা করিনি। এই গণতন্ত্রের জন্য মুক্তিযুদ্ধ করিনি। আজ আমরা দেখছি গণতন্ত্রের নামে মানুষের ভোটাধিকার ভুলুষ্ঠিত করা হচ্ছে। এ জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. স্বপন আদনান বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান অবস্থা জটিল, কখনো সাম্প্রদায়িকতার আদলে আবার কখনো তথাকথিত গণতন্ত্রের কথা বলা হচ্ছে। যেখানে মানুষের জমি বেদখল করে রাখা হচ্ছে। কখনো সংখ্যালঘু নির্যাতন আবার কখনো সংখ্যাগুরুদের নির্যাতন হচ্ছে।

তিনি বলেন, নির্বাচন একটি ঘটনা। যা পাঁচ বছর পরপর আসে। কিন্তু এই পাঁচবছরের মধ্যে যে গণতন্ত্র রয়েছে সেগুলোও শক্তিশালী করতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিচারপতি আব্দুল মতিন বলেন, সুশাসন তখনই প্রতিষ্ঠা হবে না যখন একটা হবে স্বশাসন।

অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন বিভাগ থেকে সুজনের স্বেচ্ছাসেবক ও আমন্ত্রিত অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন। অনেকেই তাদের অভিজ্ঞতা ও দেশের চলমান গণতন্ত্র নিয়ে কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে চলতি বছরের আর্থিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করে সুজন। এতে দেখা গেছে, চলতি বছরে সুজন সর্বমোট আয় করেছে ৩৫ লাখ ১৬ হাজার ৬৮৪ টাকা এবং ব্যয় হয়েছে ১৯ লাখ লাখ ৮৮ হাজার ৮৪২টাকা। এছাড়া ব্যাংকে এডিআর করে রাখা হয়েছে ১২ লাখ টাকা এবং ব্যাংকে জমা রয়েছে ৩ লাখ ২৭ হাজার ৮৪২টাকা।

সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারে উপদেষ্টা ও সুজন কেন্দ্রীয় সভাপতি এম হাফিজ উদ্দিন খান।

LEAVE A REPLY