কালভার্ট নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ ইউপি মেম্বারের বিরুদ্ধে

শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়নের জোগপাট্রা গ্রামের ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে অবৈধভাবে বিল উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, উক্ত গ্রামের সংযোগ সড়কে ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শওকত ফকির ২০১৪ সালে নিজ অর্থায়নে একটি বক্স কালভার্ট নির্মাণ করেন। পরে ২০১৬ সালে এসে পুরনো বক্স কালভার্টটিতে সিমেন্টের নতুন প্রলেপ দিয়ে টেন্ডার দেখিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে অবৈধভাবে বিল উত্তোলন করেন তিনি।

ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের জোগপাট্রা গ্রামের সংযোগ সড়কে ১৫-২০১৬ অর্থ বছরে জনসাধারণের চলাচলের জন্য একটি বক্স কালভার্ট নির্মাণের অনুমতি দেয়া হয়। তারই অংশ হিসেবে বক্স কালভার্ড তৈরি করতে ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য (মেম্বার) শওকত ফকিরকে ১ লাখ টাকা বিল প্রদান করে পরিষদ।

স্থানীয়ারা জানান, ২০১৪ সালে শওকত ফকির (মেম্বার) ছিলেন না। তখন জোগপাট্রা গ্রামের সংযোগ সড়কে যাতায়াতের জন্য শওকত ফকির একটি কাঁচা রাস্তা করেন সঙ্গে বক্স কালভার্টটিও করেন। কিন্তু ২০১৬ সালে এসে শুনলাম মেম্বর হয়ে সেই কালভার্টের জন্য নাকি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ১ লাখ টাকা উত্তোলন করেছেন।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক একটি হিন্দু পরিবার জানান, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে টাকা উত্তোলনের পূর্বে ২০১৪ সালের কালভার্টটিতে বালু, সিমেন্ট দিয়ে প্রলেপ দিয়েছেন। যাতে বুঝা যায় নতুন কালভার্ট। তাই নতুন কালভার্ট দেখিয়ে টাকা উত্তোলন করেছেন। বোঝা যাচ্ছে অন্যায়ভাবে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে টাকা উত্তোলন করে খাচ্ছে শওকত ফকির।

এ ব্যাপারে ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য শওকত ফকির বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, জোগপাট্রা গ্রামের সংযোগ সড়কে নতুন কালভার্ড করে পরিষদ থেকে টাকা উত্তোলন করেছি।

এ ব্যাপারে ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার আলী হোসেন বলেন, শওকত ফকির নির্বাচিত হওয়ার আগে বক্স কালভার্টটি নিজের অর্থায়নে করেছে আমি শুনেছি। সেই কালভার্ট দেখিয়েই ইউনিয়ন পরিষদ থেকে টাকা নেয়ার ব্যাপারটি আমি ঢাকা থেকে এসে বলবো।

LEAVE A REPLY