সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর উপর শুনানি ৮ ফেব্রুয়ারি

উচ্চ আদালতের বিচারপতিদের অপসারণ নিয়ে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিলের ওপর শুনানি হবে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি।

বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতির সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বিভাগ এই তারিখ ধার্য করেন।

উল্লেখ্য, উচ্চ আদালতের বিচারকদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের কাছে ফিরিয়ে নিতে ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী আনা হয়। বিলটি পাসের পর একই বছরের ২২ সেপ্টেম্বর তা গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়।

সুপ্রিমকোর্টের ৯ জন আইনজীবী ওই সংশোধনীর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে একই বছরের ৫ নভেম্বর হাইকোর্ট বিভাগে এই রিট আবেদন করেন। প্রাথমিক শুনানির পর রুল জারি করা হয়। একই সঙ্গে ওই সংশোধনী কেন অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়।

ওই রুলের ওপর ২০১৫ সালের ২১ মে শুনানি শুরু হয়। সেই রিটের চূড়ান্ত শুনানি শেষে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বিভাগের তিন সদস্যের বিশেষ বেঞ্চ সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীকে অবৈধ ঘোষণা করেন।

রায়ে বলা হয়, সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ও সংবিধান পরিপন্থী। সংসদকর্তৃক বিচারপতি অপসারণের বিধান একটি দুর্ঘটনা মাত্র।

হাইকোর্ট বিভাগের এই রায়ের পরপরই সংসদে আইনমন্ত্রী বলেন, ষোড়শ সংশোধনী সংবিধান পরিপন্থী নয়। এছাড়া হাইকোর্ট বিভাগের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলেও সেদিন জানিয়েছিলেন আইনমন্ত্রী। পরে হাইকোর্ট বিভাগের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ।

সর্বশেষ গত ২৯ নভেম্বর উচ্চ আদালতে বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে ন্যস্ত রেখে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী চূড়ান্ত নিষ্পত্তির জন্য বাদীপক্ষের করা আবেদনের ওপর ৫ জানুয়ারি শুনানির দিন নির্ধারণ করা হয়।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। রিট আবেদনকারীদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।

LEAVE A REPLY