৩৪ ওভারে ২৪ মেডেন দিয়েছেন মাত্র ২৪ রান !

১৩১ বলে কোনো রান দেননি তিনি। ১৯৬৪ সালের আজকের দিনেই ইংল্যান্ড টেস্টের তৃতীয় দিনে ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে এই বিরল রেকর্ডটি করেন ভারতের বাপু নান্দকার্নি।

ব্যাটসম্যানদের এই শাসনামলে যেকোনো ফরম্যাটেই এখন বোলারদের নাভিশ্বাস হওয়ার অবস্থা। সেখানে ৩২ ওভারে ২৪ মেডেন দিয়ে মাত্র ২৩ রান বা ৩৪ ওভারে ২৪ মেডেন দিয়ে ২৪ রান। আরেকটু কিপটেম করে বললে, ৩২ ওভারে ২৭ মেডেন দিয়ে মাত্র ৫ রান দেবেন কোনো বোলার এটা চিন্তা করাও বোধ হয় একটু স্বপ্ন বিলাসী হয়ে যায়।

ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশের নাসিকে জন্ম নেওয়া বাপু নানদকার্নি তা করে দেখিয়েছেন। টেস্টে তাঁর অভিষেক হয় ১৯৫৫ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। অভিষেকে তেমন একটা কিছু করতে না পারলেও ১৯৬০-৬১ সালে পাকিস্তান সিরিজে সবার নজর কাড়েন নান্দকার্নি। কানপুরে ৩২ ওভারে ২৪ মেডেন নিয়ে মাত্র ২৩ রান দেন তিনি। দিল্লিতে পরের টেস্টে ৩৪ ওভারে ২৪ মেডেন নিয়ে রান দেন মাত্র ২৪। বাপু নান্দকার্নির ঘূর্নিতে রানের তৃষ্ণায় যেন মরিয়া হয়ে উঠেছিল পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানরা।

বাঁ-হাতি এই স্পিনার তাঁর ক্রিকেট ক্যরিয়ারে খেলেছেন ৪৪টি টেস্ট। উইকেট নিয়েছেন ৮৮টি। এক ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়েছেন একবার। আর এক ইনিংসে পাঁচ উইকেটের শিকারির খাতায় নাম তুলেছেন চারবার। গড়টা ছিল অবশ্য আরো অবিশ্বাস্য, মাত্র ১.৬৭! বাপু নান্দকার্নিকের সেরা বোলিং ফিগার ৪৩ রানে ৬ উইকেট।

ব্যাট হাতেও কম ছিলেন না নান্দকার্নি। ২৫.৭০ গড়ে ১৪১৪ রান করেছেন তিনি। একটি সেঞ্চুরি ও সাতটি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন এই অলরাউন্ডার। তাঁর সেরা ব্যাটিং ১২২ রানে নট আউট।

খেলায় রেকর্ড হবে, ভেঙে আর নতুন রেকর্ড হবে এটাই স্বাভাবিক। তবে সব রেকর্ড কি ভাঙ্গা সম্ভব? ডন ব্যাডম্যানের অবিশ্বাস্য গড়, জিম লেকারের অতিমানবীয় বোলিং ফিগার কিংবা ব্রায়ান লারার ৫০০ রানের রেকর্ড হয়তো ভেঙে যাবে একদিন। তবে বাপু নানদকার্নিকের চেয়ে কিপটে বোলার কি ক্রিকেট বিশ্বে আর আসবে কখনো?

LEAVE A REPLY