লালমনিরহাটে অসহায় গরীব চরাঞ্চলে শীতবস্ত্রের জন্য আহাকার!

শাহিনুর ইসলাম প্রান্তঃ পশ্চিমে তিস্তা নদী আর উত্তরে হিমালয়ের পাদদেশে লালমনিরহাটে সর্বনিম্ন তাপমাত্রায়। ঘন কুয়াশা ও কনকনে শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। গত তিনদিনে রাতভর বেড়েছে ঠান্ডার তীব্রতা, আর বৃষ্টির মত ঘন কুয়াশা পড়ছে। সকাল গড়িয়ে একেবারে মধ্য দুপুরেও মিলছে না সূর্যের দেখা।

এদিকে শীতের তীব্রতায় কাপড়ের অভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছে। জেলার ০৫ উপজেলায় ছিন্নমূল, খেটে খাওয়া চরাঞ্চলে নদীভাঙ্গনের কবলে পড়ে ভিটেমাটি ও সম্বলহীন লক্ষাধিক অসহায় মানুষ।

বিশেষ করে হাতীবান্ধা উপজেলার চরাঞ্চলসহ খেটে খাওয়া শ্রমজীবীরা প্রচন্ড ঠান্ডায় মাঠে যেতে পারছেন না। ঠান্ডার কারণে স্কুলগামী শিক্ষার্থী ও শিশুরা পড়েছে চরম বিপাকে। জেলার নদ-নদী তীরবর্তী এলাকার চর ও দ্বীপ চরে বেশি ঠান্ডা অনুভূত হওয়ায় এখানকার মানুষজন খুড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। তীব্র শীতে দুর্ভোগ বেড়েছে গবাদি পশু-পাখির।

এদিকে শীতের তীব্রতায় হাসপাতাল গুলোতে ডাইরিয়া ও শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে। গত এক সপ্তাহে জেলার হাসপাতাল গুলোতে নিউমোনিয়া ও ডাইরিয়া রোগে কয়েক শত রোগী ভর্তি ছিল বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। এদের মধ্যে শতাধিক শিশু। এভাবে শীত তীব্রভাবে বেড়েই চলতে থাকলে শীত জনিত রোগে মহামারী আকার ধারণ করতে পারে।

সরকারী ভাবে শীতার্তদের মাঝে কিছু কম্বল বিতরণ করা হলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। তাও আবার দলীয় নেতাকর্মী, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারের মাঝে বিতরণ করা হয়। যার ফলে শীতবস্ত্র থেকে বঞ্চিত হচ্ছে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির ভোট বিরোধী অধিকাংশ অসহায় মানুষ। বিশেষ করে  চরাঞ্চলের নদীভাঙ্গলের কবলে পড়া মানুষজন শীতবস্ত্র থেকে বেশী করে বঞ্চিত হয়েছেন ।

তাই আত্মঃমানবেতার সেবায় চরাঞ্চলের অসহায় শীতার্থদের মাঝে মোটা কাপড় বা বস্ত্র বিতরনে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, এনজিও, শিল্প প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছে এই অঞ্চলের অসহায় মানুষজনসহ সুধীজনেরা।

আর শীতবস্ত্র বিতরণকারী কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে সর্বাত্মক সহযোগীতা করার জন্য হাতীবান্ধা রিপোর্টার্স ক্লাবের সদস্যগন প্রতিশ্রতিবদ্ধ। যোগাযোগ সাধারণ সম্পাদক ০১৭২১২১৭৭৭১।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবুল ফয়েজ মোঃ আলা উদ্দিন খানা জানান, প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা তহবিল থেকে জেলার শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY