আজ থেকে শুরু হচ্ছে ডব্লিউইএফ সম্মেলন

সুইজারল্যান্ডের ডাভোসে আজ থেকে শুরু হচ্ছে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ) ৪৭তম বার্ষিক সম্মেলন। এই সম্মেলনে যোগ দিতে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাঁচদিনের সফরে ডাভোসে রয়েছেন। আজ উদ্বোধনী সভায় যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি সম্মেলনের বিভিন্ন সেশনে অংশ নেবেন এবং আর্থ-সামাজিক, বিনিয়োগ এবং  বৈশ্বিক ও আঞ্চলিক ইস্যুতে দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো  তুলে ধরবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

জানা গেছে, ডব্লিউইএফ নির্বাহী চেয়ারম্যান প্রফেসর ক্লাউস সোয়াবের আমন্ত্রণে শেখ হাসিনা প্রথম বাংলাদেশী নির্বাচিত নেতা হিসেবে এই ফোরামে যোগ দিচ্ছেন।

সুইজারল্যান্ডের পূর্বাঞ্চলীয় আল্পস অঞ্চলে গ্রাউবান্ডেনে পার্বত্য রিসোর্ট ডাভোসে আগামী ১৭ থেকে ২০ জানুয়ারি ৪ দিনব্যাপী এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে- ‘প্রতিবেদনশীল এবং দায়িত্বশীল নেতৃত্ব’।

জানা গেছে, গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী ইতিহাদ এয়ার ওয়েজের ফ্লাইট সকাল ৬টা ৬ মিনিটে (স্থানীয় সময়) জুরিখ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সুইজারল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি শামিম আহ্সান বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান।

বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রীকে আনুষ্ঠানিক মোটর শোভাযাত্রা সহকারে সিলভ্রেটা পার্ক হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়। সুইজারল্যান্ড সফরকালে তিনি এই হোটেলেই অবস্থান করবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এই সফর প্রসঙ্গে বলেন, বিশ্বের শীর্ষ বহুজাতিক কোম্পানি, ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগে উদ্বুদ্ধ হবে প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে। বিশ্ব পরিম-লে বাংলাদেশকে একটি আধুনিক, উদার, গণতান্ত্রিক ও দায়িত্বশীল রাষ্ট্র হিসেবে আরও একবার তুলে ধরার সুযোগ তৈরি হবে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী ১৮ জানুয়ারি ওয়ার্ল্ডস আন্ডাওয়াটার এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেতৃত্ব শীর্ষক অধিবেশনে যোগ দেবেন। ১৯ জানুয়ারি মাল্টিপোলার ওয়ার্ল্ডে প্রতিবেদনশীল এবং দায়িত্বশীল নেতৃত্ব শীর্ষক ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক লিডারসদের এক অনানুষ্ঠানিক মতবিনিময়ে অংশ  নেবেন।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী ওইদিন সন্ধ্যায় ডাভোস ক্লোস্টারস্ এর স্কাটজাল্পে অনুষ্ঠিত ওমেন লিডার্স ডিনার:নিউ ফ্রন্টিয়ার অব লিডারশীপ শীর্ষক এক কর্মসূচিতে যোগ দেবেন। সম্মেলনে অংশগ্রহণ শেষে ২১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর ঢাকায় ফেরার কথা।

 

LEAVE A REPLY