গাইবান্ধা জেলার সাত উপজেলার কৃষকেরা চলতি মৌসুমের বোরো চাষাবাদ করছেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর (ডিএই) সূত্র জানায়, পাঁচ লাখ ৩৪ হাজার ৮৬৫ টন পরিষ্কার চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে চলতি বছরে এক লাখ ২৭ হাজার ১২৫ হেক্টর জমি বোরো চাষের আওতায় আনা হয়েছে।

এর মধ্যে সদর উপজেলায় ১৯ হাজার ৯৫০ হেক্টর , সাদুল্লাপুর উপজেলায় ১৪ হাজার ৬৭৫ হেক্টর , পলাশবাড়ি উপজেলায় ১৩ হাজার ৩৭০ হেক্টর, গোবিন্দগঞ্জে ৩০ হাজার চার’শ হেক্টর, সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ২৫ হাজার ৭৫০ হেক্টর, সাঘাটায় ১৪ হাজার ৮৮০ ও ফুলছড়ি উপজেলায় আট হাজার এক’শ হেক্টর জমি চাষের আওতায় আনা হয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, ২৮ হাজার ৬৭০ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড জাতের, ৯৭ হাজার ৫৫৫ হেক্টর জমিতে উচ্চ ফলনশীল ও নয়’শ হেক্টর জমিতে স্থানীয় জাতের বোরো ধান চাষ করা হয়েছে।

সদর উপজেলার বারোবালদিয়া গ্রামের কৃষক মমতাজুর রহমান বলেন, কৃষকেরা এখন বীজতলা থেকে চারা তুলে রোপণের কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।

চাষ কর্মসূচির আওতায় কৃষকেরা আট হাজার ৪৭৫ হেক্টর নীচু জমিতে বীজতলা প্রস্তুত করেন। বীজতলাগুলোতে চারাও ভালো হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, চাষ কর্মসূচি সফল করতে কৃষকদের মাঝে সার, কীটনাশক, বিদ্যুৎসহ অন্যান্য কৃষি উপকরণ সরবরাহ করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

ডিএই’র অতিরিক্ত উপ-পরিচালক শওকত ওসমান বলেন, ডিএই শস্যের উৎপাদন বৃদ্ধি করতে কৃষকদের জন্য প্রশিক্ষণ পরিচালনা করছে।

সোনালী ব্যাংকের সহকারী মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী আব্দুর রউফ আকন্দ বলেন, বাণিজ্যিক ও তফসিলি ব্যাংকগুলো আর্থিক অসুবিধা দূরীকরণে কৃষকদের মাঝে সহজশর্তে ঋণ প্রদানের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

LEAVE A REPLY