সোসাইটিনিউজ ডেস্ক: কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারীসহ ব্রহ্মপুত্রের বিস্তীর্ণ চরাঞ্চলে এবার বাদামের বাম্পার ফলন হয়েছে। গত বন্যায় ধান ও পাটের ব্যাপক ক্ষতি হবার পর এবার চরাঞ্চলে বাদামের বাম্পার ফলন দেখে এ অঞ্চলের কৃষকরা আশায় বুক বেঁধেছে। বাদামের পাশাপাশি সরিষা, মাসকালাই ও আখের ফলন ভাল হবে আশা করছেন কৃষকরা।

চিলমারী উপজেলার অষ্টমীর চর ইউনিয়নের ডাটিয়ার চরে গিয়ে দেখা যায় চারিদিকে সবুজের মেলা। কৃষকরা মাঠ থেকে বাদাম তুলতে শুরু করেছে। চরের বাসিন্দা শাহাজাহান আলী (৪০), আজিত (৭০), এন্তাজ (৪৫) ও সিরাজুল (৫০) জানিয়েছেন, গত বন্যায় ধান ও পাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কৃষকরা কেউ পাট ঘরে তুলতে পারেনি। জমিতেই পাট পঁচে গেছে। এতে তাদের ব্যাপক ক্ষতি হয়। সামনের দিনগুলি কীভাবে চলবে তা নিয়ে সবাই হতাশায় ভুগছিল।

কিন্তু বন্যার পানি নেমে যাবার পর দেখা যায় চরের জমি গুলোতে ব্যাপক পলিমাটি পড়েছে। এসব মাটিতে এবার বাদামসহ রবিশষ্যের এতো ভাল ফলন হবে তা কেউ আশা করেনি। গত বছর বাদামের সব্বোর্চ মূল্য ছিল প্রতি মণ ৭’শ থেকে ৮’শ টাকা ।

এবার বাদাম মণপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ২০০ টাকা। বাদামের মূল্য ভাল পাওয়ায় কৃষকরা তাদের পূর্বের ক্ষতি কিছুটা কাটিয়ে উঠতে পারবে বলে আশা করছে। চিলমারী ছাড়াও ব্রহ্মপুত্র অববাহিকার রৌমারী, রাজীবপুর, সদর, নাগেশ্বরী ও উলিপুর উপজেলার চরাঞ্চলে বাদামের ভালো ফলন হয়েছে।

চিলমারী উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি রবি মৌশুমে বাদামের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৬’শ হেক্টর। অর্জিত হয়েছে ৭৫০ হেক্টর জমি।

চিলমারী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ খালেদুর রহমান জানান, জমিতে পলি পরাতে এবারে রবি শস্যেরও ভাল ফলন হবে বলে তিনি আশা করেন।
সূত্র:বাসস

LEAVE A REPLY