দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, বদলি, মাতৃত্বকালীন ছুটি, পেনশন প্রাপ্তির জন্য জেলা শিক্ষা অফিসে ঘুষ দিতে হয়। শিক্ষকরা নিয়মিত ক্লাস না নিয়ে প্রাইভেট পড়ান। সেই টাকার ভাগ শিক্ষা অফিসে যায়। শিক্ষকরা সময়মতো বিদ্যালয়ে যান না। এ ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতি সহ্য করা হবে না। প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগকে পুরোপুরি দুর্নীতিমুক্ত হতে হবে।
বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম পিটিআই অডিটোরিয়ামে প্রাথমিক শিক্ষায় সুশাসন নিশ্চিতকরণে চট্টগ্রাম বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় চট্টগ্রাম বিভাগের সকল জেলা শিক্ষা অফিসার, পিটিআই ইনস্ট্রাক্টর, থানা শিক্ষা অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অংশ নেন।
দুদক চেয়ারম্যান বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা হচ্ছে শিক্ষার মূল ভিত্তি। এ ভিত্তি মজবুত না হওয়ার পেছনে কোচিং সেন্টার ও কিন্ডার গার্টেনে শিক্ষাদান শেষে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষাদানে শিক্ষকদের উদাসীনতা দায়ী। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নের বাতিঘর প্রাথমিক শিক্ষা। একে আরো প্রজ্জ্বলিত করতে হবে।

LEAVE A REPLY