উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সৎ ভাই কিম জং ন্যাম হত্যার ঘটনার ১০ দিন পর নীরবতা ভেঙে হত্যার জন্য মালয়েশিয়াকে দায়ী করেছে উত্তর কোরিয়া। সেই সাথে এতে দক্ষিণ কোরিয়ার হাত আছে বলে অভিযোগ করছে দেশটি ।

দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনএ’র প্রতিবেদনে উত্তর কোরিয়ার বিচারক কমিটির বরাতে বলা হয়েছে, মালয়েশিয়া কিম ন্যামের মরদেহের যে ময়নাতদন্ত ও ফরেনসিক পরীক্ষা করেছে তা অবৈধ এবং এর মাধ্যমে দেশটি অনৈতিক আচরণ করেছে।

উত্তর কোরিয়ার অভিযোগ, মালয়েশিয়া কিম ন্যাম হত্যার ঘটনাকে অনৈতিকভাবে সামলেছে এবং শত্রুদের সঙ্গে মিলে রাজনীতি করেছে।

বিচারক কমিটি অবিলম্বে কিম ন্যামের মরদেহ উত্তর কোরিয়ার কাছে হস্তান্তরের দাবি জানিয়েছে।

তবে মালয়েশিয়া জানিয়েছে, কিম ন্যামের পরিবারের সদস্যদের ডিএনএ নমুনা না পাওয়া পর্যন্ত তার মরদেহ হস্তান্তর করবে না।

তবে উত্তর কোরিয়ার দাবি, মরদেহ হস্তান্তরের ব্যাপারে এই অবস্থানের মাধ্যমে মালয়েশিয়া রাজনীতি করার চেষ্টা করছে, যা আন্তর্জাতিক আইন এবং নৈতিকতার বিরোধী। এর মাধ্যমে মালয়েশিয়া অশুভ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে চায় বলেও অভিযোগ উত্তর কোরিয়ার।

উল্লেখ্য, গত ১৩ ফেব্রুয়ারি কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে রহস্যজনকভাবে নিহত হন কিম জং ন্যাম। মালয়েশীয় পুলিশের ধারণা, ফ্লাইটের জন্য অপেক্ষাকালে তাকে বিষ প্রয়োগে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার জন্য উত্তর কোরিয়ার কুয়ালালামপুর দূতাবাসের একজন সিনিয়র কূটনীতিকসহ দেশটির সাত ব্যক্তি এবং ইন্দোনেশিয়া ও ভিয়েতনামের একজন করে নারী জড়িত বলে সন্দেহ করছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY