গত এক বছরে ৩৫ কোটি জোড়া জুতা তৈরি করেছে বাংলাদেশ।  যা বিশ্বের জুতা উৎপাদনকারী দেশের মধ্যে অষ্টম স্থান।

ওয়ার্ল্ড ফুটওয়্যার ইয়ারবুক-২০১৬-তে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব উঠে এসেছে।

রোববার রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে চামড়া ও পাদুকাসহ চামড়াজাত পণ্যেকে ২০১৭ সালের বর্ষ পণ্য ঘোষণাবিষয়ক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, এক বছরে ৩৫ কোটি জোড়া জুতা তৈরি করেছে বাংলাদেশ। ফলে জুতা উৎপাদনে বিশ্বের অষ্টম স্থানে রয়েছে দেশটি। উৎপাদনের এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে আগামী ১০ বছরে চামড়া ও পাদুকাসহ চামড়াজাত পণ্যের বাজারে বিশ্ব অর্থনীতিতে অন্যতম প্রতিযোগী দেশ হবে বাংলাদেশ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, রপ্তানি পণ্য বহুমুখীকরণ ও বাজার সম্প্রসারণ, শিল্পায়নে উৎসাহিত করা, দেশ-বিদেশি বিনিয়োগে আকৃষ্ট করতে প্রতি বছর রপ্তানিযোগ্য সম্ভাবনাময় পণ্যকে ‘বর্ষপণ্য’ ঘোষণার বিধান রয়েছে। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী চামড়া ও পাদুকাসহ চামড়াজাত পণ্যেকে ২০১৭ সালের বর্ষ পণ্য ঘোষণা করেছে।

২০১৫-১৬ অর্থবছরে চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি করে ১১৬ কোটি ৯ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার আয় করেছে। দেশের দ্বিতীয় রপ্তানি খাত হিসেবে চামড়া খাত ক্রমাগত এগিয়ে যাচ্ছে বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মিকাইল শিপার, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব শুভাশীষ বসু, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ, বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. শাহিন আহমেদ ও লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এলএফএমইএবি) প্রাক্তন সভাপতি সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

LEAVE A REPLY