রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষের নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বর্ণিল বেলুন ও ফুলে শোভিত মঞ্চে রবিবার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। কানায় কানায় পূর্ণ মিলনায়তনে উপস্থিত সবার হাতে জ্বলে উঠে প্রদীপ, সম্মেলক কণ্ঠে ধ্বনিত হয় ‘আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণে..। নৃত্য-গীতে তৈরি এমনই মোহনীয় আবহে বরণ করে নেয়া হয়েছে নবীনদের। সব শেষে শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পরিবেশনায়ও অনুষ্ঠিত হয় এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
অনুষ্ঠানে উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দিন নবাগত শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেন। সেখানে উপাচার্য তাঁর বক্তৃতায় বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার এক অনির্বাণ বাতিঘর। বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার পাশাপাশি মুক্তবুদ্ধি চর্চার পবিত্র অঙ্গন। এখানে জাতির জন্য ক্ষতিকর কোনো কিছুর স্থান নাই। যে শিক্ষা মানুষের শুভবোধকে উন্মোচিত করে, চেতনাকে করে দেশপ্রেমে উদ্ভাসিত, নিজ মেধা ও অভিজ্ঞতাকে দেশের কল্যাণে ধাবিত করে সেই শিক্ষার আদর্শ ক্ষেত্র এই বিশ্ববিদ্যালয়। উপাচার্য নবীন শিক্ষার্থীদের সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশের রূপায়ণে সদা প্রয়াসী হতেও আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর মো. মিজানুর রহমান এছাড়াও রেজিস্ট্রার প্রফেসর মুহাম্মদ এন্তাজুল হকের সঞ্চালনায় ও ধন্যবাদান্তে বক্তৃতা করেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর সায়েন উদ্দিন আহমেদ, বিজ্ঞান অনুষদের অধিকর্তা প্রফেসর মো. আখতার ফারুক, রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ প্রফেসর রুবাইয়াত ইয়াসমিন, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর সেলিনা পারভীন ও প্রক্টর প্রফেসর মো. মুজিবুল হক আজাদ খান প্রমূখ।
প্রসঙ্গত, নবীন শিক্ষার্থীদের জন্য তথ্যসমৃদ্ধ পুস্তিকার নতুন সংস্করণও এদিন প্রকাশিত হয়।##

LEAVE A REPLY