বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, একটা রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন হচ্ছে জনগণ। জনগণের কাছে যে রাজনৈতিক দল জনপ্রিয়, সেটাই নিবন্ধের মাপকাঠি। তার পরে আইন থাকলেও আইনকে মান্য করতে হয়। কিন্তু সে আইন যদি কালো আইনে পরিণত হয়, কোনো ব্যক্তির ইচ্ছা পূরণের সহায়ক হয়, তাহলে সেই আইন মান্য না করাই বড় কাজ।
’নিবন্ধন হারানোর ভয়ে বিএনপি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসবে’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের-এর এমন বক্তব্যে প্রতিক্রিয়ায় শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
রিজভী বলেন, যদি শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হয়, রেজিস্ট্রেশন রক্ষা করার জন্য নির্বাচন করতে হয়, তাহলে সেই নির্বাচন প্রকৃত নির্বাচন হবে না। সেটা জোর করে তামাসার নির্বাচন, বাধ্য করার নির্বাচন হবে। এ নির্বাচনের জন্য তো বিএনপি লড়ায় করেনি। বিএনপি লড়াই করেছে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য। যেন ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা যেতে পারে। বিএনপির নিবন্ধন হলো জনগণ।
নির্বাচন সুষ্ঠু হতে মাঠ সমতল হতে হবে দাবি করে রিজভী বলেন, শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে নিরপেক্ষ, স্বচ্ছ্ব হবে না। মাঠ সমতল হবে না। নিরপেক্ষ অন্তর্বতীকালীণ সরকার বলুন, আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারই বলুন, সেটা নিরপেক্ষ সরকার হতে হবে। তাহলেই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে।
সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY