আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে বলেন

وَلَوْ بَسَطَ اللَّهُ الرِّزْقَ لِعِبَادِهِ لَبَغَوْا فِي الْأَرْضِ وَلَٰكِن يُنَزِّلُ بِقَدَرٍ مَّا يَشَاءُ ۚ إِنَّهُ بِعِبَادِهِ خَبِيرٌ بَصِيرٌ – الشوري- ٢٧

অর্থাৎঃ আল্লাহ তায়ালা যদি তাহার সকল বান্দাদের রিজিক প্রশস্ত করিয়া দিতেন তাহা হইলে তাহারা পৃথিবীতে গোলযোগ ধাইত আল্লাহ তায়ালা যোগ্যতা অনুযায়ী রিজিক নাজিল করেন । বান্দাদের অবস্থা সম্পর্কে তিনি পুরোপুরি অবগত আছেন এবং কে কি করিতেছে সব কিছু দেখিতেছেন ।

  • সূরা শূরা- আয়াত ২৭

এই আয়াতে ইঙ্গিত করা হইয়াছে যে, পাইকারী ভাবে সবাইকে স্বচ্ছলতা প্রদান করা হইলে তাহলে পৃথিবীতে দাঙ্গা হাঙ্গামার কারন হবে ।

স্পস্ট ভাবে এটা ধারণা করা যায় এবং অভিজ্ঞতা হইতেও জানা যায়,
যদি আল্লাহ তায়ালা তাঁহার অনুগ্রহ দ্বারা সকল মানুষকে বিত্তশালী করে দেন তাহলে বিশ্ব ব্যাবস্থার ক্ষেত্রে অচলাবস্থা সৃষ্টি হবে ।

যদি সবাই মনিব হইয়া যায় তবে শ্রমজীবি কারা হবে ?

  • কে কাকে মানবে ?
    কেননা সবার ই তো সমান ক্ষমতা থাকবে।

ইবনে জায়েদ রহঃ বলেন, আরব দেশে যেই বছর অধিক ফসল উৎপন্ন হইত সেই বছর জনসাধারণ পরস্পরকে বন্দী করিত ও হত্যা করিতে শুরু করিত ।
দুর্ভিক্ষের সময়ে তাহাদেরকে ছাড়িয়া দিতো ।

  • দুররে মনছুর

হযরত আলী রাঃ এবং অন্যান্য সাহাবাগণ হইতে বর্ণিত আছে যে আসহাবে সোফফা কৃতক দুনিয়াদারী প্রত্যাশা করার পরিপ্রেক্ষিতে এই আয়াত নাজিল হইয়াছে ।

হযরত কাতাদাহ রাঃ এই আয়াতের ব্যাখ্যা প্রসঙ্গে বলেন, যেই রিজিক তোমার মধ্যে হটকারিতা সৃষ্টি করিবেনা এবং তোমাকে আত্মমগ্ন করিয়া দিবে না তাহাই উত্তম রিজিক।

একবার নবী কারীম সাঃ বলিয়াছেন আমার উম্মতের ব্যাপারে দুনিয়াবী চাকচিক্য তথা জাঁকজমকসম্পর্কে আমি আশঙ্কা করিতেছি ।

এক ব্যাক্তি জিজ্ঞাসা করিলেন, হে আল্লাহর রাসূল ! মালামালও কি অকল্যাণের কারণ হইয়া থাকে ?

তারপর সূরা কাসাস থেকে ৭৭ নাম্বার আয়াত নাজিল হয় ।

কয়েকদিন যাবৎ কিছু মানুষ আল্লাহ কে সরাসরি ফেইসবুক স্টাটাসের মাধ্যমে প্রশ্ন করতেছিলো
এই ধনী গরিব কনো করা হলো

যার পরিপ্রেক্ষিতে এটা উঠিয়ে নিয়ে আসলাম

আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী আপনাকে রিজিক দেয়া হয় আপনার যোগ্যতা দেয়া আছে একটা কাজের বড় কাজের যোগ্যতা আপনাকে দেয়া হইনি কিন্তু আশা করে বসে থাকছেন বিলগেটস এর মত টাকা পাবেন এটা তো হলো না

যোগ্যতার উপর নামাজের উপর রিজিক নির্ভর সুন্নত ও নেক আমল দ্বীনের উপরে চলার দ্বারা, হালাল ইনকামের উপর বরকত নির্ভর ।

LEAVE A REPLY