বিশ্বের নয়টি দেশের কাছে মোট ১৪ হাজার ৯০০টি পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে। এর ৯৩ শতাংশই রয়েছে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের হাতে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে রাশিয়ার এ ধরনের অস্ত্রের সংখ্যা বেশি।

ফেডারেশন অব আমেরিকান সায়েন্টিস্টসের বরাত দিয়ে এশিয়া নিউজ নেটওয়ার্কের এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বে মোট ১৪ হাজার ৯০০টি পারমাণবিক অস্ত্রের মধ্যে রাশিয়ার হাত রয়েছে সাত হাজার অস্ত্র। আর যুক্তরাষ্ট্রের কাছে রয়েছে ছয় হাজার ৮০০টি। এ ছাড়া ফ্রান্সের কাছে রয়েছে ৩০০টি, চীনের কাছে ২৬০, যুক্তরাজ্যের ২১৫, পাকিস্তানের ১২০, ভারতের ১২০, ইসরায়েলের ৮০ ও উত্তর কোরিয়ার কাছে আছে ১০টি পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে।

পারমাণবিক অস্ত্র বিরতিকরণ চুক্তিতে স্বাক্ষর করা দেশগুলো হলো যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্য। ইসরায়েল তার পারমাণবিক কর্মসূচির বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করেনি।

তবে বিশ্বে পারমাণবিক অস্ত্রের সংখ্যা প্রকাশিত তথ্যের চেয়েও অনেক বেশি বলে ধারণা রয়েছে। স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিউ রিসার্চ ইনস্টিটিউটের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই নয়টি দেশের কাছে মোট ১৫ হাজার ৩৯৫টি পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে। এর আগে ২০১৫ সালে বলা হয়েছিল, ওই নয়টি দেশে ১৫ হাজার ৮৫০টি পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে।

সবার আগে যুক্তরাষ্ট্র ১৯৪৫ সালে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করে। ১৯৪৯ সালে রাশিয়া এই অস্ত্র তৈরি করতে সক্ষম হয়। পারমাণবিক শক্তিধর দেশে পরিণত হওয়া সর্বশেষ দেশ হলো উত্তর কোরিয়া। দেশটি ২০০৬ সালে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করে।

LEAVE A REPLY