খাদিজা বেগম । ছবি : প্রথম আলোখাদিজা বেগম ।
হামলাকারী বদরুলকে যাবজ্জীবন সাজা দেওয়ায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন খাদিজা বেগম। আজ বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ থানা এলাকার আউশা গ্রামে নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এভাবেই রায়ের প্রতিক্রিয়া জানান।

খাদিজা বলেন, ‘আদালতের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা। এই রায়ে আমি সন্তুষ্ট। দেশের মানুষের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞতা জানাই। আমি আবার লেখাপড়া করতে চাই। পড়াশোনায় মনোযোগী হতে চাই। লেখাপড়া করে আমার স্বপ্নপূরণ করতে চাই। এ জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই।’

সিলেটের কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম হত্যাচেষ্টা মামলায় একমাত্র আসামি বদরুল আলমকে আজ বুধবার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাঁকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে দুই মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

নিজের ওপর বর্বর আক্রমণের বিচার আজ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে পাওয়ায় খাদিজা আরও খুশি বলে জানান। তিনি বলেন, ‘এ দিনে বাংলাদেশের সকল নারীর প্রতি আমার আহ্বান হলো, আমার মতো যেন আর কেউ এমন পরিস্থিতির শিকার না হয়। এ জন্য সবাই যেন সচেতন হন।’রায় ঘোষণার সময় হত্যাচেষ্টা মামলার বাদী ও খাদিজার চাচা আবদুল কুদ্দুস আদালতে ছিলেন। সেখান থেকে তিনি মোবাইলে খাদিজাসহ পরিবারের সবাইকে রায় জানান। খাদিজার বাবা মাসুক মিয়া ও বড় ভাই শাহিন আহমদ প্রবাসী। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি খাদিজা আদালতে সাক্ষ্য দেওয়ার পর তাঁরা প্রবাসে ফিরে গেছেন। খাদিজার বাবা ও ভাইকে রায় জানানো হয়েছে এবং তাঁরাও সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

আবদুল কুদ্দুস বলেন, ‘আমাদের চাওয়া এখন একটিই, এ রায় যেন উচ্চ আদালতেও বহাল থাকে।’

LEAVE A REPLY