শেরপুরের নকলা উপজেলাকে বাল্যবিবাহমুক্ত করার লক্ষ্যে গতকাল মঙ্গলবার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মতবিনিময় সভা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন ও মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর যৌথভাবে এর আয়োজন করে। সভায় আগামী এক বছরের মধ্যে উপজেলাকে শতভাগ বাল্যবিবাহমুক্ত করার সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় জনপ্রতিনিধি, সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা, নিকাহ নিবন্ধক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় নেতা এবং শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজীব কুমার সরকার।

ইউএনও সভায় বাল্যবিবাহ রোধে সম্ভাব্য কর্মসূচির বিস্তারিত রূপরেখা উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, বাল্যবিবাহ একটি অভিশাপ। এর মাধ্যমে অপরিণত বয়সী গর্ভবতী মা ও নবজাতক পুষ্টিহীনতায় ভোগে। এ কারণে শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার বেশি হয়। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, দেশের অন্য জেলার তুলনায় শেরপুরে বাল্যবিবাহের হার বেশি। তবে প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তৎপরতায় বাল্যবিবাহের হার ক্রমান্বয়ে কমে আসছে। সবাই সচেতন হলে বাল্যবিবাহের হার শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনা সম্ভব।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুব আলী চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান সারোয়ার আলম তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।