টি-২০ ক্রিকেটের ফেরিওয়ালা বলা হয় তাকে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের টি-২০ টুর্নামেন্টে তার সরব উপস্থিতি জানান দেয় তার জনপ্রিয়তা। তাকে ছাড়া যেন টি-২০ ক্রিকেটের কথা কল্পনাও করা যায় না। কথা বলছিলাম ক্যারিবিয়ানের দানবীয় ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইলের কথা। মঙ্গলবার গেইল টি-২০ ক্রিকেটে একটি বিশাল মাইলফলক স্পর্শ করেছেন।

যদিও দশম আইপিএলে গেইলকে বেশ কয়েকটা ম্যাচে বাইরে রেখেছিল তার দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। মঙ্গলবার ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ওপেনার বুঝিয়ে দিলেন, সিদ্ধান্তটা মোটেও ঠিক ছিল না। প্রথম কয়েকটা ওভার একটু দেখে খেলেছিলেন। তার পর ফিরে এলেন ঝড় হয়ে। যে ঝড়ের তাণ্ডবে উড়ে গেলেন গুজরাত বোলাররা। সাতটা ছয় এবং পাঁচটা চারে গেইল যখন ৩৮ বলে ৭৭, বাসিল থাম্পির একটা ইয়র্কর গেইলের প্যাডে আছড়ে পড়ে। তার আগে অবশ্য টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ১০ হাজার রান করে ফেললেন গেইল। বিশ্ব ক্রিকেটে এই প্রথম। টি-২০ তে গেইলের মোট রান ১০০৭৪। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর ৬৬ বলে ১৭৫ রান।

মঙ্গলবার হাফ সেঞ্চুরি করার পরে গেইলকে দেখা গেল ‘সল্ট বায় সেলিব্রেশন’ করতে। যে সেলিব্রেশনের উৎস হল তুরস্কের এক রেস্তোরাঁর শেফের হাতে। মাংসতে তিনি এ ভাবেই নুন ছেটাতেন। যা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে।
তাঁর সঙ্গীকে নিয়ে বিরাট কোহালি বলছেন, ‘টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দশ হাজার রান একটা অবিশ্বাস্য ব্যাপার।

আর গেইল নিজে বলছেন, সাবধান! ইউনিভার্স বস কিন্তু এখনও বেঁচে আছে। দশ হাজারের ব্যাপারটা আমার মাথায় ছিল। ম্যাচ শুরুর আগে স্যামুয়েল বদ্রী মনে করিয়ে দেয়। আর মাইলফলকটি স্পর্শ করার দিনে ভক্তদের ধন্যবাদ দিতেও ভোলেন নি এই দানবীয়