তিন কোটি টাকার ফিচার ফোন!

একটা ফিচার ফোনের দাম কত হতে পারে? এক-দুই হাজার নাকি কোটি টাকা! যুক্তরাজ্যের বিলাসবহুল ফোন নির্মাতা ভার্চুর তৈরি একটি ফিচার ফোনের দাম প্রায় তিন কোটি টাকা। দাম শুনে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই। কারণ এ ফোন তৈরি করা হয়েছে, বিলাসবহুল ফিচার ফোন হিসেবে। সারা দুনিয়ায় মাত্র আটজনের জন্য ফোনটি তৈরি করা হবে। তবে যাঁরা এ ফোন নিতে আগ্রহী, তাঁদের কাছ থেকে ফরমাশ নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফিচার ফোন বলে কথা! ভার্চু প্রিমিয়াম ফোনটির নাম ভার্চু সিগনেচার কোবরা। এ ফোন লিমিটেড এডিশন। দাম ৩ লাখ ৬০ হাজার ডলার বা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় দুই কোটি ৯০ লাখ টাকা।

এর দাম এত বেশি কেন? আর কী বা আছে এতে? ভার্চুর পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে-ফিচার ফোন হলে কী হবে, এটার বিশেষত্ব এর নকশায়। ফোনটির কোনা বেয়ে সাপের মতো আকার দেওয়া হয়েছে। এতে বসানো হয়েছে ৪৩৯টি রুবি আর ‘সাপের’ দুই চোখে এমারল্ডস দিয়ে তৈরি। ফোনটিকে আরও সুন্দর করতে এতে সোনা ও ক্রিস্টাল ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনের নকশা করেছে ফ্রান্সের জুয়েলারি হাউস বুশেরন। তবে ফিচার ফোন হিসেবে এটি আর দশটা ফিচার ফোনের মতোই। যাঁরা এ ফোনের ফরমাশ দেবেন তাঁদের কাছে বিশেষভাবে হেলিকপ্টারে করে ফোনটি পৌঁছে দেওয়া হবে। গিজচায়না ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, ফোনটি ৩৮৮টি যন্ত্রাংশ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে যার পুরোটা সংযোজন করা হয়েছে যুক্তরাজ্যে। চীনের একটি ই-কমার্স সাইটের মাধ্যমে এটি বিক্রির জন্য আগাম ফরমাশ নেওয়া হচ্ছে। চীনে এই ধরনের মাত্র একটি ফোন বিক্রি করা হবে।

ফিচার ফোনে সাধারণত ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায় না। এটা দিয়ে ফোন কল করা ও বার্তা পাঠানোর মতো সাধারণ সুবিধাগুলো থাকে।