আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবসে ভাষার জন্য যারা জীবন দিয়েছেন জাতির সেই শ্রেষ্ঠ সন্তানদের কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করছে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ কেন্দ্রীয় কমিটি।
সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. সাজ্জাদ হোসেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সন্তান জোবায়দা হক অজন্তা ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. আল-আমিনের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা আজ শুক্রবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করে।
শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের পর এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সংগঠনের সভাপতি মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, তরুণ প্রজন্মকে বাংলাদেশের জন্মের সঠিক ইতিহাস জানতে শেকড়ের সন্ধান করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, আজকের স্বাধীন বাংলাদেশ একদিনে প্রতিষ্ঠিত হয়নি, এর পেছনে রয়েছে দীর্ঘ গৌরবময় ইতিহাস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ২৩ বছর আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে জাতিকে স্বাধীনতা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত করেন। তার নেতৃত্বে আমাদের পূর্বসূরিরা লড়াই-সংগ্রাম করে মায়ের ভাষার মর্যাদা রক্ষায় ১৯৫২ সালে বুকের রক্ত দিয়েছে। ১৯৭১ সালে মাতৃভূমিকে স্বাধীন করতে জীবন উৎসর্গ করেছে। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে আমাদের একুশে ফেব্রুয়ারি এখন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মর্যাদা পেয়েছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর প্রাক্কালে আমাদের বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের বিষ্ময়। এসব ইতিহাস আমাদের নতুন প্রজন্মকে জানতে হবে।
সমাবেশে অন্যান্য নেতা বলেন, মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের সন্তানদের নিয়ে স্বাধীনতাবিরোধীদের অনুগামী একটি চক্র সুগভীর ষড়যন্ত্রে মেতেছে। তারা মুক্তিযোদ্ধা বান্ধব বর্তমান সরকারের শীর্ষ নেতৃত্বকে মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে বিভ্রান্ত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী প্রশাসন গড়ার ষড়যন্ত্র করছে।
তারা মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধা বিরোধী যেকোন ষড়যন্ত্র এবং জঙ্গি সন্ত্রাস দমনে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।